বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সুরমা বেগমের বাড়ি লাখাই উপজেলার ভাদিকারা গ্রামে। তিনি বলেন, ‘অনেক সময় কিছু মানুষ আমাকে নিয়ে হাসিঠাট্টা করে থাকেন। হিজড়ারাও তো মানুষ, সেই হিসাব কেউ করে না। তাই বামৈ ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নম্বর সংরক্ষিত ওয়ার্ডে সদস্যপদে প্রার্থী হয়েছেন বলে জানান তিনি।’

সুরমা বেগম বলেন, তাঁর ওয়ার্ডে এর আগে কখনো হিজড়ারা প্রার্থী হননি। তিনিই প্রথম নির্বাচন করছেন। তিনি বলেন, ‘আমি দেখাতে চাই আমি মানুষ, আমিও মানুষের সেবা করতে পারি। একবার সুযোগ পেলে সেই কাজটি করে দেখাতে চাই।’ সুরমা জানান, নির্বাচনে তাঁর প্রতীক ক্যামেরা। ক্যামেরায় মানুষের প্রকৃত চেহারা ফুটিয়ে তুলতে চান তিনি।

সুরমা বেগম বলেন, তিনি প্রতিদিন সকাল-সন্ধ্যা প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। এলাকার ভোটাররা তাঁকে বৈষম্যের চোখে দেখছেন না। সবার সহযোগিতা পাচ্ছেন। তবে কোনো কোনো স্থানে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীরা তাঁর পোস্টার ছিঁড়ে ফেলেন। এতে তাঁর খুব কষ্ট হয়। তিনি আশাবাদী নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়ী হবেন।

২৬ ডিসেম্বর লাখাই উপজেলার পাঁচ ইউপিতে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

পরিবেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন