বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সোমবার সকাল থেকে রাজধানীসহ দেশের বেশির ভাগ এলাকার আকাশ ছিল মেঘলা। দিনভর থেমে থেমে ঝিরিঝিরি বৃষ্টি হয় অনেক জায়গায়। এত করে তৈরি হয় শীতের আবহ। রাজধানীতে দেখা যায়, নানা কাজে বের হওয়া নগরবাসীর অনেকের গায়ে হালকা শীতের পোশাক।

আবহাওয়া অধিদপ্তর সূত্র জানায়, আরব সাগর থেকে ভারতের মুম্বাই, মধ্যপ্রদেশ হয়ে পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশ পর্যন্ত এক বিশাল মেঘমালা তৈরি হয়েছে। গত বুধবার বঙ্গোপসাগরের একটি নিম্নচাপ ভারতের স্থলভাগ অতিক্রম করে আরব সাগরে গিয়ে পড়েছে। সেখান থেকে এটি আরও মেঘ তৈরি করছে, যা ভারত ও বাংলাদেশের আকাশে আসছে। এ কারণে চার দিন ধরে মেঘের দখলে রয়েছে আকাশ।

সূত্রমতে, মেঘ সরতে থাকায় দেশের উত্তরাঞ্চল দিয়ে শীতের হিমেল হাওয়া আসতে শুরু করেছে। এতে পঞ্চগড়-কুড়িগ্রামসহ উত্তরের জনপদে শীত বেড়েছে। সেখানকার বেশির ভাগ জেলার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের আশপাশে রয়েছে। মেঘলা আকাশ ও মাঝেমধ্যে ঝিরিঝিরি বৃষ্টির কারণে তাপমাত্রা না কমলেও শীতের অনুভূতি বেড়েছে। আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, মঙ্গলবারও একই ধরনের আবহাওয়া থাকতে পারে।

এদিকে বঙ্গোপসাগরের শেষ সীমানায় আন্দামান দ্বীপপুঞ্জের কাছে তৈরি হওয়া লঘুচাপটি আরেকটু শক্তি সঞ্চয় করেছে বলে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে। এটি ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে কি না, তা নিশ্চিত করতে পারেনি অধিদপ্তর। তবে ভারতের আবহাওয়া অধিদপ্তর বলছে, লঘুচাপটি মঙ্গলবারের মধ্যে নিম্নচাপে পরিণত হয়ে ভারতের চেন্নাই উপকূলের কাছাকাছি চলে আসতে পারে।

এ বিষয়ে আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ এ কে এম নাজমুল হক প্রথম আলোকে বলেন, সোমবার লঘুচাপটি ভারতের স্থলভাগ থেকে নেমে আরব সাগরে পড়েছে। যে কারণে বঙ্গোপসাগরের নিম্নচাপ সরে গেলেও মেঘ রয়ে গেছে। তবে মঙ্গলবারের মধ্যে মেঘ কমে রোদের দেখা পাওয়া যেতে পারে।

সোমবার দেশের সবচেয়ে কম তাপমাত্রা ছিল পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায়, ১৩ দশমিক ৭ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এদিন সবচেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে চাঁদপুরে, ২০ মিলিমিটার। রাজধানীতে সন্ধ্যা ছয়টা পর্যন্ত ১০ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।

পরিবেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন