বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রেকর্ডধারী সালাহউদ্দীনের পাখিটির নাম হরবোলা, পাতা-বুলবুলি ও সবুজ বুলবুলি। আমাদের আবাসিক এই পাখির ইংরেজি নাম Jerdon’s Leaf Bird. বৈজ্ঞানিক নাম chloropsis jerdoni. দৈর্ঘ ১৮-১৯ সেমি। ওজন ২৭-৩৩ গ্রাম।

এই পাখি হরবোলা নামে এ জন্য পরিচিত যে এরা অন্য বেশ কয়েক প্রজাতির পাখির ডাক নকল করতে পারে। ডালপাতার আড়ালে বসে নকল ডাক ছেড়ে এ পাখি অন্য পাখিকে ভড়কে দিয়ে বেশ মজা পায়। আবার যে গাছে ফল ও ফুল আছে,Ñ সেই গাছে খাবার খেতে যখন বিভিন্ন প্রজাতির অনেক পাখি জোটে, তখন শিকারি পাখি ডাক ছাড়লে আতঙ্কে ওই পাখিগুলো উড়ে পালায়। তখন গিয়ে খায় একা একা পেটপুরে। দাপুটে ও সাহসী এই পাখির ভেতরে একটি ‘হামবড়া’ ভাবও লক্ষ্য করা যায়। খাওয়ার সময় গাছের ঝুলন্ত-দুলন্ত সরু ডালপাতায় দুলে-ঝুলে এ পাখি সার্কাসম্যানের মতো যেমন মজার নানান কসরত দেখায়, তেমনি চমকপ্রদ অ্যাক্রোব্যাটিকও প্রদর্শন করে। পলাতক উড়ন্ত পোকামাকড় ঊর্ধ্বমুখী যেকোনো অ্যাঙ্গেলে ডাইভ দিয়ে এরা পাকড়াও করতে পারে শূন্যে নান্দনিক সৌন্দর্য সৃষ্টি করে। এ পাখির মূল খাদ্য নানা রকম ফল-ফুলের কলি ও কচি পাপড়িসহ ফুলের রেণু। গাছের খোঁড়লে-খোঁদলে জমা বৃষ্টি বা শিশিরের জমা জলও পান করে। পলাশ ফুল ফুটলে সেই গাছে এ পাখি আসবেই বলে মনে করা হয়।

পুরুষ হরবোলার ঠোঁট, গলা, চিবুক ও চোখের নিচ কাজল কালো। ঠোঁটের গোড়া থেকে নীলচে-সবুজ রঙের চওড়া একটি টান বয়ে গেছে চোখের নিচ দিয়ে। মাথার তালু ও ঘাড় সবুজাভ-হলুদ। চোখের উপরিভাগের হলুদাভ রং এ পাখির ঘাড় ও বুক পর্যন্ত নেমেছে। বুক ও পেট কচি কলাপাতা সবুজ। ডানার প্রান্ত ও লেজের উপরিভাগ আকাশি নীল। পিঠ গাঢ় পাতা-সবুজ। ঠোঁট কালো। পা ও পায়ের পাতা স্লেটি-ধূসর। নখ ছাইরঙা। স্ত্রী পাখির গলা ও ডানার প্রান্ত এবং লেজের উপরিভাগ আকাশি নীল, মাথার তালু ও ঘাড় হলুদাভ। পিঠ পাতা-সবুজ। বুক ও পেট সবুজাভ,Ñতাতে হলুদের আলতো ছোঁয়া। ঠোঁট মাংসল-বাদামি।

হরবোলা বাসা করে হেমন্ত ও গ্রীষ্মে। গাছের খাড়া ও সরু দুই ডাল বা তিন ডালের ভেতরে বাঁশের শিকড়, পাতা ও কলাগাছের আঁশ, শুকনা ঘাস, মাকড়সার জাল ইত্যাদি দিয়ে বাটির মতো বাসা বানায়। চকচকে ক্রিম বা গোলাপি-ক্রিম রঙের ২–৩টি ডিম পাড়ে। আমাদের টিলা-পাহাড়ি বন, সুন্দরবনসহ দক্ষিণ-পশ্চিম বাংলাদেশে পাখিটি দেখতে পাওয়ার সম্ভাবনা আছে।

পরিবেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন