default-image

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের দু-এক জায়গায় আজ শনিবার হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি হতে পারে। এ ছাড়া  দেশের বিভিন্ন জায়গায় আকাশ আংশিক মেঘলা থাকবে। আজ সকাল পর্যন্ত দেশের কোথাও কোথাও কুয়াশা থাকতে পারে।

গতকাল শুক্রবার সকাল থেকে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় আকাশ মেঘাচ্ছন্ন ছিল। থেমে থেমে বৃষ্টিও হয়েছে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাস বলছে, আগামীকাল রোববার থেকে আকাশ পরিষ্কার হতে পারে। এরপর তাপমাত্রা কমে শীত পড়বে।

বিজ্ঞাপন

আবহাওয়াবিদেরা বলছেন, দেশের বিভিন্ন এলাকার আকাশে উড়ে আসা মেঘ এসেছে মূলত সুদূর আরব সাগর থেকে। সেখানে একটি গভীর নিম্নচাপ তৈরি হয়েছে। এটি ইয়েমেন উপকূলের দিকে এগোচ্ছে। কিন্তু ওই নিম্নচাপ থেকে একখণ্ড মেঘমালা ভারত মহাসাগর হয়ে বঙ্গোপসাগর দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। এর সঙ্গে আরব সাগরের শুষ্ক পুবালি বায়ুও রয়েছে। উল্টো দিক থেকে নেপাল ও হিমালয় হয়ে শীতল উত্তরের হাওয়া পঞ্চগড় দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। জলীয় বাষ্পে পূর্ণ পুবালি বাতাস ও উত্তরের শুষ্ক হিমেল বাতাসের সংঘাতে দেশের বায়ুমণ্ডলে অস্থিরতা তৈরি হয়েছে।
উত্তরের বাতাস ও পুবালি বাতাসের সংঘাতের কারণেই দেশের বিভিন্ন স্থানে ঝোড়ো বাতাস তৈরি হয়েছে বলে মনে করছেন আবহাওয়াবিদেরা। ওই বাতাসের গতি ঘণ্টায় বড় জোর ৪০ থেকে ৫০ কিলোমিটার ও বৃষ্টি দু-তিন মিলিমিটারের বেশি হবে না বলে মনে করছেন আবহাওয়াবিদেরা।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ আবদুল মান্নান গতকাল প্রথম আলোকে বলেন, ‘শীতের শুরুতে পুবালি ও উত্তরের শীতল বাতাসের মিলন স্বাভাবিক। এ ছাড়া আমাদের পূর্বাভাসেও বলা ছিল, এই শীতে বৃষ্টিপাত স্বাভাবিকের চেয়ে কিছুটা বেশি হবে। ফলে ওই হালকা বৃষ্টি ও দমকা হাওয়া বয়ে গেছে। তবে রোববার থেকে তাপমাত্রা কিছুটা কমতে শুরু করতে পারে।’

গতকাল দেশের সবচেয়ে কম তাপমাত্রা ছিল পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায়—১৫ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রাজধানীর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২১ ডিগ্রি সেলসিয়াসের সামান্য বেশি।

মন্তব্য পড়ুন 0