বিজ্ঞাপন
default-image

এ বিষয়ে পরিবেশ অধিদপ্তরের বায়ুর মান বিভাগের পরিচালক জিয়াউল হক প্রথম আলোকে বলেন, ‘তাপমাত্রা কমতে থাকায় এবং কুয়াশা বেড়ে যাওয়ায় বায়ুর মান দ্রুত খারাপ হচ্ছে। তবে গত বছর থেকে আমরা বায়ুদূষণের অন্যতম প্রধান উৎস অবৈধ ইটভাটা বন্ধ করে দেওয়া শুরু করেছি। এ বছর ইটভাটার পাশাপাশি নির্মাণকাজের ধুলা ও যানবাহনের ধোঁয়া নিয়ন্ত্রণে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে।’

বিশ্বের বায়ুর মান পর্যবেক্ষণকারী আন্তর্জাতিক সংস্থা এয়ার ভিজ্যুয়ালের পর্যবেক্ষণ অনুযায়ী, সোমবার সন্ধ্যায় সোয়া ৭টায় বিশ্বের প্রধান শহরগুলোর মধ্যে বায়ুদূষণের দিক দিয়ে ঢাকার অবস্থান ছিল ১২তম। সবচেয়ে দূষিত বায়ুর শহরের তালিকায় শীর্ষে ছিল ভারতের দিল্লি, পাকিস্তানের লাহোর ও মঙ্গোলিয়ার উলানবাটোর।

এয়ার ভিজ্যুয়ালের পর্যবেক্ষণে বলা হয়, ঢাকার বায়ুদূষণ রোধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া না হলে আজ মঙ্গলবার থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত বায়ুর মান অস্বাস্থ্যকর অবস্থায় থাকবে। এ সময় বয়স্ক মানুষ ও শিশুদের মাস্ক পরে বাইরে বের হওয়া ও দূষিত বায়ু যাতে ঘরে প্রবেশ করতে না পারে, সে জন্য জানালা বন্ধ রাখার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

প্রতিবছর নভেম্বর থেকে রাজধানীসহ দেশের প্রধান শহরগুলোর বায়ুদূষণ নিয়ন্ত্রণে পরিকল্পনা নেওয়া উচিত।
কামরুজ্জামান মজুমদার, পরিচালক, ক্যাপস, স্ট্যামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়

এদিকে আবহাওয়া অধিদপ্তরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আজ মঙ্গলবার দেশের বেশির ভাগ এলাকার আবহাওয়া প্রধানত শুষ্ক থাকবে। আপাতত বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই। দেশের নদী তীরবর্তী এলাকায় হালকা কুয়াশা পড়তে পারে। সোমবার দেশের সবচেয়ে কম তাপমাত্রা ছিল পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায়, ১২ দশমিক ৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। রাজধানীর সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২০ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। সাধারণত এ ধরনের আবহাওয়ায় বায়ুদূষণ বাড়ে।

স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়ুমণ্ডলীয় দূষণ অধ্যয়নকেন্দ্রের (ক্যাপস) পরিচালক কামরুজ্জামান মজুমদার প্রথম আলোকে বলেন, প্রতিবছর নভেম্বর থেকে রাজধানীসহ দেশের প্রধান শহরগুলোর বায়ুদূষণ নিয়ন্ত্রণে পরিকল্পনা নেওয়া উচিত। সিটি করপোরেশন ছাড়াও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে পানি ছিটানোর যানবাহন আছে। সেগুলোকে ধুলাদূষণ নিয়ন্ত্রণে কাজে লাগানো উচিত। নির্মাণকাজ ও যানবাহনের ধুলা নিয়ন্ত্রণে আরও কঠোর হওয়ার তাগিদ দেন তিনি।

পরিবেশ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন