অনাবাসী ১০ বাংলাদেশিকে বাণিজ্যিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি (সিআইপি) নির্বাচিত করেছে সরকার। দেশের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ ‘বৈদেশিক মুদ্রা প্রেরণকারী’ ক্যাটাগরি বা শ্রেণিতে তাঁদের সিআইপি নির্বাচিত করা হয়েছে।
প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় থেকে গত রোববার এ বিষয়ে একটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে। প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী ইতালি, সংযুক্ত আরব আমিরাত (ইউএই) ও ওমানে থাকা তিনজন করে নয়জন রয়েছেন। বাকি একজন বাহরাইনে প্রবাসী।
ইতালিপ্রবাসী তিনজনের মধ্যে দুই ভাই মোহাম্মদ ইদ্রিছ ও জাহাঙ্গীর মোহাম্মদ হোসেন রাজধানী ঢাকার রামপুরা বনশ্রীর অধিবাসী। আর নাপোলিতে অবস্থানরত ওহিদ মোল্লার গ্রামের বাড়ি মাদারীপুর জেলার শিবচরে।
ইউএইতেও আছেন দুই ভাই, সিলেটের ইসলামপুরের মোহাম্মদ মাহতাবুর রহমান ও ওলিউর রহমান। দেশটি থেকে বৈদেশিক মুদ্রা প্রেরণকারী হিসেবে সিআইপি নির্বাচিত হওয়া অপরজন হলেন কুমিল্লার আবুল কালাম।
এদিকে ওমানপ্রবাসী চট্টগ্রামের লালদীঘির সন্তান মোহাম্মদ শাহজাহান মিয়া, তাঁর স্ত্রী সাজেদা নূর বেগম ও ভাই মোহাম্মদ কামাল পাশা সিআইপি নির্বাচিত হয়েছেন।
বাহরাইনে বসবাসকারী চট্টগ্রামের আনোয়ারার মোহাম্মদ শফি উদ্দিনও সিআইপি নির্বাচিত হয়েছেন ।
প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, সিআইপি নির্বাচিত ব্যক্তিদের এক বছরের জন্য কার্ড দেওয়া হবে, যা দেখিয়ে তাঁরা ঢাকায় সচিবালয়ে ঢুকতে পারবেন। ব্যবসা-সংক্রান্ত ভ্রমণে তাঁরা বিমান, সড়ক, রেল ও নৌপথে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে আসন সংরক্ষণের সুযোগ পাবেন এবং বিমানবন্দরে ভিআইপি লাউঞ্জ-২ ব্যবহার করতে পারবেন।
অনাবাসী বাংলাদেশি সিআইপিরা দেশে বিনিয়োগ করতে চাইলে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের সমান সুযোগ পাবেন। দেশ-বিদেশে উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের সঙ্গে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে বৈঠক করতে পারবেন।
স্বাধীনতা দিবস, বিজয় দিবস, শহীদ দিবসসহ জাতীয় দিবসে বিদেশে বাংলাদেশ মিশনের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ পাবেন অনাবাসী সিআইপিরা।
এ ছাড়া স্ত্রী-পুত্র-কন্যা ও নিজের চিকিৎসার জন্য সরকারি হাসপাতালে কেবিন পাওয়ার ক্ষেত্রেও অগ্রাধিকার পাবেন তাঁরা।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0