default-image

প্রবাসী আয়ে ২ শতাংশ হারে প্রণোদনা দেওয়া হচ্ছে গত অর্থবছরের শুরু থেকে। আর গত মার্চে এসে কেন্দ্রীয় ব্যাংক জানায়, শিপিং লাইন, পাইলট, মেরিনার ও সরকারের কর্মকর্তারা বিদেশে থেকে আয় করে দেশে পাঠালে প্রণোদনা পাবেন। ফলে তাঁরা তখন থেকে প্রণোদনা পাচ্ছেন।

এখন কেন্দ্রীয় ব্যাংক বলছে, ওই নির্দেশনা ২০১৯ সালের ১ জুলাই থেকে কার্যকর হবে। এর ফলে যারা আগে প্রবাসী যায় পাঠিয়েছেন, তারাও প্রণোদনার টাকা পাবেন।
গত বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় এ নিয়ে নতুন করে ব্যাংকগুলোকে নির্দেশনা দিয়েছে। কেন্দ্রীয় ব্যাংক বলছে, প্রণোদনা কবে থেকে পাবে, এ নিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি হওয়ায় নতুন করে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রানীতি বিভাগের নির্দেশনায় বলা হয়, চলতি বছরের ১১ মার্চ প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে জানানো হয়েছিল, বাংলাদেশি মালিকানাধীন শিপিং লাইনস ও এয়ারলাইনস কোম্পানির বিদেশ অফিসে (বাংলাদেশ সরকার বা সরকারের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান ব্যতীত) ও বিদেশি শিপিং লাইনস ও এয়ারলাইনসে কর্মরত বাংলাদেশি মেরিনার ও এয়ার ক্র্যাফট পাইলট এবং বিশ্বের বিভিন্ন দেশে জাতিসংঘ বা অন্যান্য সংস্থা, প্রতিষ্ঠান এবং বিদেশি মিশনে (বাংলাদেশ সরকার বা সরকারের মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠান ব্যতীত) কর্মরত বাংলাদেশি কর্মকর্তারা বিদেশে অবস্থানকালে অর্জিত অর্থ বৈধ উপায়ে দেশে পাঠালে ওই অর্থের ওপর নগদ সহায়তা প্রাপ্যতার বিষয়টি অবিলম্বে নিশ্চিত করতে হবে।

তবে সম্প্রতি লক্ষ করা যাচ্ছে, সেই প্রজ্ঞাপনের বর্ণিত অবিলম্বে কার্যকর বলতে কোনো কোনো ব্যাংক ২০১৯ সালের ১ জুলাই এবং কোনো কোনো ব্যাংক প্রজ্ঞাপনের তারিখ থেকে প্রবাসী আয় বিবেচনা করে গ্রাহককে ২ শতাংশ নগদ সহায়তা প্রদান করছে। এতে করে গ্রাহকদের মধ্যে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হচ্ছে। তাই নতুন করে স্পষ্ট করা যাচ্ছে, এ নির্দেশনা ২০১৯ সালের ১ জুলাই থেকে কার্যকর হবে।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তারা বলছেন, সরকারের পরামর্শে নতুন করে এ সুবিধা দিতে হয়েছে। এতে ২০১৯ সালের জুলাই থেকে যারা যায় পাঠিয়েছেন, তারা সবাই নতুন করে প্রণোদনা পাবেন। এতে ব্যাংকগুলোতে বাড়তি চাপ তৈরি হবে বলে মনে করছেন কর্মকর্তারা।

বৈধ পথে প্রবাসী আয় বাড়াতে চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে ২ শতাংশ হারে প্রণোদনা ঘোষণা করে সরকার। সে অনুযায়ী, গত বছরের ১ জুলাই থেকে প্রবাসীরা প্রতি ১০০ টাকার বিপরীতে ২ টাকা প্রণোদনা পাচ্ছেন।

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে প্রবাসী আয়ে (রেমিট্যান্স) মন্দা দূর করতে যাচাই ছাড়া আয় আনার পরিমাণ বাড়িয়ে দেয় বাংলাদেশ ব্যাংক। এর ফলে প্রবাসীদের পাঠানো ৫ হাজার ডলার বা ৫ লাখ টাকা আয় কোনো যাচাই-বাছাই ছাড়া ২ শতাংশ নগদ সহায়তা পাবে। আগে দেড় লাখ টাকা পর্যন্ত আয়ে কোনো যাচাই-বাছাই ছাড়া নগদ সহায়তা দিয়ে আসছিল সরকার। এর ফলে আয় বাড়ছে।

মন্তব্য পড়ুন 0