default-image

ছোট, ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোক্তাদের ঋণের সীমা বাড়িয়েছে বাংলাদেশ ব্যাংক। এই শিল্পের উন্নয়নে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) সহায়তায় পরিচালিত পুনঃ অর্থায়ন তহবিল থেকে প্রদেয় ঋণ নেওয়ার পরিমাণ বাড়ানো হয়েছে। এর ফলে এখন থেকে ছোট উদ্যোক্তারা তিন কোটি ও মাঝারি উদ্যোক্তারা পাঁচ কোটি টাকা ঋণ নিতে পারবেন। এর আগে এই তহবিলের ঋণের সুদহার ৯ শতাংশ থেকে ৬ শতাংশে নামানো হয়।

এত দিন এসএমইডিপি-২ (ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প উন্নয়ন প্রকল্প-২) নামের এই তহবিল থেকে ছোট উদ্যোক্তারা ১ কোটি এবং মাঝারি উদ্যোক্তারা ৩ কোটি টাকা ঋণ নিতে পারতেন। গত বুধবার ওই সীমা পরিবর্তন করে নতুন নির্দেশনা দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।
ব্যাংক-সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, প্রণোদনার আওতায় কম সুদে ঋণ বিতরণের কারণে বেশি সুদের সাধারণ ঋণ বিতরণ প্রায় বন্ধ। আবার বিভিন্ন দাতা সংস্থার আর্থিক সহায়তা তহবিলের আওতায় বিভিন্ন খাতের পুরোনো কিছু ঋণ রয়েছে, যেগুলোর সুদহার এখনো ৬ শতাংশের বেশি। এ কারণে গ্রাহকেরা এসব ঋণ নিতে খুব বেশি আগ্রহ দেখাচ্ছেন না। তাই পুনঃ অর্থায়ন ঋণের সুদহার কমাতে শুরু করেছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক। চাহিদা থাকায় ঋণের সীমাও বাড়ানো হয়েছে।

বিজ্ঞাপন

জানা গেছে, সিএমএসএমই খাতের জন্য সরকার ও এডিবির প্রকল্পের আওতায় গত অক্টোবর পর্যন্ত প্রায় তিন হাজার এসএমই প্রতিষ্ঠান ঋণ পেয়েছে।

এদিকে করোনাভাইরাসের পর এসএমই খাতের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক তিনটি প্রকল্পের ঋণের সুদহার কমিয়ে ৭ শতাংশ নির্ধারণ করেছে। এরপরও এসব ঋণ বাড়ছে না। এর বাইরে করোনাভাইরাসের প্রকোপ শুরু হলে সিএমএসএমই খাতের চলতি মূলধন সুবিধার জন্য ২০ হাজার কোটি টাকা ঋণ বিতরণের কাজ চলমান।

উদ্যোক্তা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন