default-image

কমলাপুরের অভ্যন্তরীণ কনটেইনার ডিপোর (আইসিডি) কাস্টম হাউসে আজ রোববার পণ্য খালাস হয়নি। শুল্ক কর্মকর্তাদের হয়রানি ও স্বেচ্ছাচারিতার অভিযোগ এনে কাস্টমস এজেন্ট প্রতিনিধিরা পণ্য খালাস করেননি। এমনকি কোনো বিল অব এন্ট্রিও জমা দেননি। আজ সকাল থেকেই এজেন্ট প্রতিনিধিরা কাস্টমস হাউস চত্বরে যাননি। এর ফলে আজ পণ্য শুল্কায়নের কাজ হয়নি।

বিজ্ঞাপন

জানা গেছে, অভিযোগগুলোর সমস্যার সমাধান না হওয়া পর্যন্ত তাঁরা কাজে যোগ দেবেন না। সকাল নয়টা থেকে বিকেল পাঁচটা পর্যন্ত কমলাপুরের কাস্টম হাউসে এক ধরনের কর্মবিরতি ছিল। তবে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। ঢাকা কাস্টমস এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ফারুক আলম প্রথম আলোকে জানান, শুল্ক গোয়েন্দা ও শুল্ক কর্মকর্তারা প্রায় পণ্য খালাসের সময় এজেন্ট প্রতিনিধিদের সঙ্গে স্বেচ্ছাচারী আচরণ করেন। পণ্য খালাসের সময় তাঁরা নানা ধরনের প্রতিবন্ধকতার সৃষ্টি করেন। অনৈতিক লেনদেনের প্রস্তাবও দেন। এ নিয়ে অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে গত সপ্তাহে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) সংশ্লিষ্ট সদস্যকে বিষয়টি জানানো হয়েছে। কিন্তু সমস্যার সমাধান না হওয়ায় সকাল থেকে কাস্টমস এজেন্ট প্রতিনিধিরা কেউ পণ্য শুল্কায়ন করেননি। তিনি জানান, যতক্ষণ এসব অভিযোগের সমাধান না হবে, ততক্ষণ কর্মবিরতি চলবে।

বিজ্ঞাপন

কমলাপুর আইসিডি দিয়ে প্রতিদিন আমদানি-রপ্তানিসহ সব মিলিয়ে প্রায় ১০০ বিল অব এন্ট্রি দাখিল হয়। বর্তমানে প্রায় ১৫০ কাস্টমস এজেন্ট কাজ করেন এই কাস্টম হাউসে। এজেন্ট প্রতিনিধিরা আমদানিকারকদের পণ্য খালাস করে থাকেন। এদিকে আজকের ঘটনা সম্পর্কে জানতে চাইলে এনবিআর সদস্য সৈয়দ গোলাম কিবরিয়া প্রথম আলোকে জানান, তিনি ঢাকার বাইরে আছেন। আগামীকাল সোমবার ঢাকায় এসে বিষয়টি সমাধান করবেন তিনি।

মন্তব্য পড়ুন 0