বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
বেসরকারি খাত যদি লাভ করতে পারে, পর্যটন করপোরেশন কেন লোকসান গুনছে? এর মানে কোথাও শুভংকরের ফাঁকি আছে।
শফিক আলম মেহেদী, সাবেক সচিব

রাজধানীর আগারগাঁওয়ে ১৫ তলা পর্যটন ভবনে এখন দুই সংস্থার কার্যালয়। দুটি সংস্থার কাজের ধরন একই। তবে করপোরেশনকে নিজস্ব আয়ে চলতে হয় আর ট্যুরিজম বোর্ড চলে সরকারের টাকায়। আর পর্যটন করপোরেশনের চেয়ে বোর্ডের প্রতি সরকারের মনোযোগ বেশি। তা ছাড়া দেশি–বিদেশি মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলো বেশি যোগাযোগ করে ট্যুরিজম বোর্ডের সঙ্গে। এ বৈষম্য মানতে পারছে না পর্যটন করপোরেশন।

জানতে চাইলে সাবেক সচিব শফিক আলম মেহেদী বলেন, ট্যুরিজম বোর্ড প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ২০১০ সালে আর পর্যটন করপোরেশন ১৯৭৩ সালে। তারা এত বছরে কেন উন্নতি করতে পারেনি? সেটা তাদের বলতে হবে। ট্যুরিজম বোর্ড গঠন করার কারণে নতুন কিছু কাজ হয়েছে। বিদেশে প্রচারণা বেড়েছে।

ট্যুরিজম বোর্ড চলে সরকারের টাকায় আর পর্যটন করপোরেশন নিজস্ব আয়ে—এ বৈষম্যের বিষয়ে সাবেক এই সচিব প্রথম আলোকে বলেন, বেসরকারি খাত যদি লাভ করতে পারে, পর্যটন করপোরেশন কেন লোকসান গুনছে? এর মানে কোথাও শুভংকরের ফাঁকি আছে।

নতুন একটি সংস্থা না করে পর্যটন করপোরেশনকে শক্তিশালী করা যেত কি না—এমন প্রশ্নের জবাবে শফিক আলম মেহেদী বলেন, ভারত, মালয়েশিয়াসহ বিশ্বের অনেক দেশেই আলাদা প্রতিষ্ঠান কাজ করছে। ওই সব দেশে পর্যটন করপোরেশন করে বাণিজ্যিক কাজ। আর বোর্ড করে পর্যটন উন্নয়নের কাজ। প্রতিষ্ঠার এত বছরেও যদি করপোরেশন নিজের পায়ে দাঁড়াতে না পারে, তাহলে বুঝতে হবে কোথাও গলদ আছে।

এদিকে পর্যটন করপোরেশনের কর্মকর্তাদের মতো সংস্থাটির সাবেক চেয়ারম্যান অপরূপ চৌধুরীও মনে করেন, ট্যুরিজম বোর্ড গঠনের প্রয়োজন ছিল না। কারণ, দুটি সংস্থা সমজাতীয় কাজ করে। ট্যুরিজম বোর্ড রাজস্ব খাত থেকে বেতন পায় আর পর্যটন করপোরেশন নিজের আয়ে চলে। এই বিভাজন কেন—জানতে চাইলে অপরূপ চৌধুরী প্রথম আলোকে বলেন, পর্যটন করপোরেশন দুর্বল অবস্থানে থাকার কারণে।

অপরূপ চৌধুরীর মতে, পর্যটন করপোরেশনে যেসব কর্মকর্তা যান, তাঁরা ঘনঘন বদলি হয়ে যান। সেখানে যাঁদের নিয়োগ দেওয়া হয়, তাঁদের দীর্ঘদিন থাকতে হবে। নিজস্ব জনবলকেও পদোন্নতি দিতে হবে। পদোন্নতি না হলে তাঁরা উদ্যম হারিয়ে ফেলবেন।

ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) জাবেদ আহমেদ বলেন, দুটি সংস্থার মধ্যে সাংঘর্ষিক কিছু নেই। পর্যটন করপোরেশন হোটেল–মোটেল আর প্রকল্প বাস্তবায়ন নিয়ে কাজ করছে। আর ট্যুরিজম বোর্ড পর্যটনের উন্নয়নে কাজ করছে। দুটি সংস্থা ভারসাম্য রেখে কাজ করছে।

পর্যটন করপোরেশনের চেয়ারম্যান হান্নান মিয়া প্রথম আলোকে বলেন, দুটি সংস্থার কাজ আলাদা। এতে কোনো সমস্যা হচ্ছে না।

বাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন