default-image

কর ফাঁকি দিয়ে অবৈধ অর্থ পাচারে গ্রাহকদের সহযোগিতা করার ঘটনায় ক্ষমা চেয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক বহুজাতিক ব্যাংক হংকং অ্যান্ড সাংহাই ব্যাংকিং করপোরেশন (এইচএসবিসি)। ক্ষমা চেয়ে প্রতিষ্ঠানটি গতকাল রোববার যুক্তরাজ্যের বিভিন্ন পত্রিকায় পাতাজুড়ে বিজ্ঞাপন দিয়েছে। খবর বিবিসির।
বিশ্বের ২০৩টি দেশে এইচএসবিসির ওই অবৈধ কর্মকাণ্ডের বিষয়ে গত সোমবার প্রতিবেদন প্রকাশ করে আন্তর্জাতিক অনুসন্ধানী সাংবাদিক কনসোর্টিয়াম। এই অনুসন্ধানে জড়িত ছিল ফরাসি পত্রিকা লা মঁদ, ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসি, গার্ডিয়ানসহ বেশ কয়েকটি দেশের প্রভাবশালী গণমাধ্যম। ওই প্রতিবেদন অনুযায়ী, বাংলাদেশের ১৬ ব্যক্তিও এইচএসবিসির ওই অবৈধ সুযোগ নিয়ে ১ কোটি ৩৩ লাখ মার্কিন ডলার পাচার করেন।
এসব ঘটনায় ক্ষমা চেয়ে গতকাল পত্রিকায় বিজ্ঞাপন দিয়ে এইচএসবিসি বলেছে, গণমাধ্যমের সাম্প্রতিক প্রতিবেদন তাদের জন্য একটি ‘বেদনাদায়ক অভিজ্ঞতা’। বিজ্ঞাপনে ব্যাংকটির প্রধান নির্বাহী স্টুয়ার্ট গালিভারের একটি খোলা চিঠিও ছাপা হয়েছে। প্রতিষ্ঠানের গ্রাহক ও কর্মীদের উদ্দেশে লেখা চিঠিতে গালিভার বলেছেন, ব্যাংকের সুইস শাখাটির যে অনিয়ম নিয়ে এত তোলপাড়, সেই শাখাটি ‘পুরোপুরি সংস্কার’ করা হয়েছে।
এইচএসবিসির প্রধান নির্বাহী বলেন, ‘আমাদের সুইস শাখার সাবেক একজন কর্মী আট বছর আগের কিছু তথ্য চুরি করেন। সেই তথ্যের ওপর ভিত্তি করে যুক্তরাজ্যের বেশির ভাগ গণমাধ্যম ১৪০ জন গ্রাহকের হিসাবে অনিয়মের ওপর বেশি জোর দিয়েছে। এর কারণ, তাঁরা সুপরিচিত। এ ছাড়া ওই ১৪০ জনের বেশির ভাগ এখন আর আমাদের গ্রাহক নেই।’ স্টুয়ার্ট গালিভার আরও বলেন, ‘গণমাধ্যমে বলা হচ্ছে, প্রায় এক লাখ গ্রাহকের হিসাবে অনিয়ম হয়েছে। কিন্তু আমাদের সুইস শাখায় ৩০ হাজারের বেশি গ্রাহক কোনো সময় ছিল না।’
এইচএসবিসির এই নির্বাহী বলেন, ‘যেসব গ্রাহক কর ফাঁকি দিতে চান বা আমাদের মানদণ্ড পূরণে সমর্থ নন, তাঁদের নিয়ে ব্যবসা করার ইচ্ছা আমাদের মোটেই নেই।’

বিজ্ঞাপন
বাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন