default-image

পতনে পতনে জেরবার বিশ্ব শেয়ারবাজার গতকাল মঙ্গলবার হঠাৎ করে ঘুরে দাঁড়িয়েছে। করোনাভাইরাসের প্রভাবে বিশ্ব অর্থনীতি যে মন্দায় পড়তে যাচ্ছে—এ বিষয়ে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে এখন আর সন্দেহ নেই। এই অনিশ্চয়তার কারণে ঘুরে দাঁড়িয়েছে শেয়ারবাজার।

বিবিসি অনলাইনের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

গতকাল যুক্তরাষ্ট্রের শেয়ারবাজারের প্রধান সূচক ডাও জোনস বাড়ে ১১ দশমিক ৪ শতাংশ, যা ১৯৩৩ সালের পর এক দিনে সর্বোচ্চ বৃদ্ধি। এসঅ্যান্ডপি ৫০০ এবং লন্ডনের প্রধান সূচকও গতকাল ২০০৮ সালের অর্থনৈতিক মন্দার সময়ের পর সবচেয়ে ভালো দিন দেখেছে। দুটো সূচকই বেড়েছে ৯ শতাংশ করে। এর মধ্য দিয়ে টানা কয়েক সপ্তাহ দরপতনের পর হঠাৎ করেই ঘুরে দাঁড়াল শেয়ারবাজার।

আইএইচএস মার্কিটের জরিপ অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোজোনে ব্যবসায়িক কার্যক্রম মার্চ মাসে সর্বনিম্ন স্তরে নেমে এসেছে। কারণ, প্রায় সব এলাকায় স্কুল, কলেজ, ক্ষুদ্র ব্যবসা থেকে শুরু করে সব ধরনের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে আছে। বিভিন্ন দেশ এই অর্থনৈতিক দুর্যোগ কাটাতে পুনরুদ্ধার প্যাকেজ, অর্থ সহায়তাসহ নানা ধরনের কার্যক্রম হাতে নিয়েছে তবে এসব কিছু বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আস্থা ফেরাতে পারছে না।

যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেস নেতারা জানান, ১ লাখ ৮০ হাজার কোটি ডলারের একটি ত্রাণ প্যাকেজের বিষয়ে চূড়ান্ত আলোচনার দ্বারপ্রান্তে ছিলেন তাঁরা, যার মধ্য দিয়ে ক্ষতিগ্রস্ত শিল্পগুলোকে অর্থ সহায়তা দেওয়া হবে। এটি নিয়ে এখনো কাজ হচ্ছে।

যুক্তরাষ্ট্র ও লন্ডনের মতো জার্মানির শেয়ারবাজারে গতকাল উত্থানে ছিল। জার্মানির ডাক্স সূচক ১১ শতাংশ বেড়েছে। ফ্রান্সের সিএসি ৪০ সূচকটিও ৮ দশমিক ৪ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। আজ বুধবার উত্থানে লেনদেন শুরু হয়েছে এশিয়ার পুঁজিবাজারেও।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0