বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) গতকাল সোমবার মূল্যবৃদ্ধির শীর্ষে ছিল সেনা কল্যাণ ইনস্যুরেন্সের শেয়ার। এদিন কোম্পানিটির প্রতিটি শেয়ারের দাম সর্বোচ্চ ১০ শতাংশ বা ২ টাকা ৮০ পয়সা বেড়েছে। নিয়ম অনুযায়ী, সাধারণত তালিকাভুক্ত কোনো কোম্পানির শেয়ারের দাম এক দিনে সর্বোচ্চ ১০ শতাংশের কমবেশি হতে পারে না। তাই লেনদেন শুরুর দিন থেকে প্রতিদিন কোম্পানিটির শেয়ারের দাম ১০ শতাংশ করে বেড়েছে। তবে হাতবদল হওয়া শেয়ারের পরিমাণ ছিল খুবই কম। এখন পর্যন্ত এক দিনে কোম্পানিটির সাড়ে আট হাজারের বেশি শেয়ারের হাতবদল হয়নি।

সেনা কল্যাণ ইনস্যুরেন্সের পাশাপাশি গতকাল বিমা খাতের লেনদেন হওয়া বেশির ভাগ শেয়ারেরই দাম বেড়েছে। তবে ব্যাংক ও ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানের শেয়ারের দরপতন ঘটেছে। তাতে সূচকেরও বড় দরপতন হয়।

ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স গতকাল ৬৩ পয়েন্ট বা প্রায় ১ শতাংশ কমে দাঁড়িয়েছে ৭ হাজার ২২ পয়েন্টে। ঢাকার বাজারে সোমবার লেনদেন হওয়া ৩২ ব্যাংকের মধ্যে ৩০টিরই দাম কমেছে, বেড়েছে কেবল দুটির। দাম কমলেও লেনদেনে ব্যাংকের আধিপত্য আরও বেড়েছে। ঢাকার বাজারে মোট লেনদেনের ৪৪ শতাংশ বা ৫১৬ কোটি টাকাই ছিল ব্যাংক খাতের। বাজারসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, গত কয়েক দিনে কিছু কিছু ব্যাংকের শেয়ারের দাম ২০-৩০ শতাংশ পর্যন্ত বেড়েছে। তাই অনেকে এসব শেয়ার থেকে মুনাফা তুলে নিয়েছেন।

এদিকে সূচকের পাশাপাশি কমেছে লেনদেনও। সোমবার দিন শেষে ডিএসইতে লেনদেনের পরিমাণ ছিল ১ হাজার ২২৬ কোটি টাকা, যা আগের দিনের চেয়ে ৫৬০ কোটি টাকা কম।

ঢাকার বাজারে গতকাল লেনদেন কমে যাওয়ার পেছনে বড় কারণ ছিল বড় বড় কয়েকটি কোম্পানির লেনদেন বন্ধ থাকা। রেকর্ড তারিখের কারণে বেক্সিমকো লিমিটেড, বেক্সিমকো ফার্মা, স্কয়ার ফার্মা, ইউনাইটেড পাওয়ারসহ ২০ কোম্পানির লেনদেন এদিন বন্ধ ছিল। এসব কোম্পানির সম্মিলিত লেনদেনের পরিমাণ ২০০ কোটি টাকার মতো। এর মধ্যে বেক্সিমকো লিমিটেড ছিল লেনদেনের শীর্ষ পর্যায়ের কোম্পানি। সর্বশেষ গত রোববার এককভাবে বেক্সিমকোর ১২৮ কোটি টাকার শেয়ারের হাতবদল হয়েছিল।

বাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন