default-image

দেশে প্রথমবারের মতো আয়োজন করা হয়েছে ‘ই-অ্যাওয়ারনেস অলিম্পিয়াড’। গতকাল শুক্রবার এর ফাইনাল রাউন্ড শেষ হয়। এই অলিম্পিয়াডে সেরা ২০ জন হয়েছে ‘সাইবার চ্যাম্প’।

ইন্টারনেট ব্যবহারকারী শিক্ষার্থীদের সুরক্ষা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে ডিনেট ‘উগ্রবাদের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থীদের জন্য ই-সচেতনতা’ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে। প্রকল্পের একটি অংশ হিসেবে ডিনেট শিক্ষার্থীদের জন্য www.cyberchamp.com.bd ওয়েবসাইটটিতে সাইবার সচেতনতাবিষয়ক কমিক ও কুইজ তৈরি করেছে। এর তত্ত্বাবধান করছে সরকারের তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগ। এতে ইউএসএআইডির ‘অবিরোধ: সহনশীলতার পথে’ কর্মসূচি সহযোগিতা করছে।

এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গতকাল ৮ মে www.facebook.com/cyberchamp2020 ফেসবুক পেজে লাইভ ইভেন্টের মাধ্যমে দেশের প্রথম ‘ই-অ্যাওয়ারনেস অলিম্পিয়াড’-এর ফাইনাল রাউন্ডটি অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করেছে বিভিন্ন বাংলা মিডিয়াম, ইংলিশ মিডিয়াম স্কুল-কলেজ ও মাদ্রাসার প্রায় ৪০০ শিক্ষার্থী। ফেসবুকে এই অনুষ্ঠান উপভোগ করেছেন প্রায় ১৬ হাজার দর্শক। অনুষ্ঠানটিতে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব এন এম জিয়াউল আলম। অনুষ্ঠানটিতে বিশেষ অতিথি ছিলেন যুব ও ক্রীড়াসচিব মো. আখতার হোসেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাধবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক জিয়া রহমান, ইউএসএআইডির ‘অবিরোধ: সহনশীলতার পথে’ প্রোগ্রামের চিফ অব পার্টি জেরোম সায়ার, ইউএসএআইডির গভর্ন্যান্স ও সিভিই-বিষয়ক উপদেষ্টা রুমানা আমিন এবং ডিনেটের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা এ বি এম সিরাজুল হোসেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি এ বি এম সিরাজুল হোসেন ২০ প্রতিযোগীকে বিজয়ী ঘোষণা করেন। বিজয়ীরা পাচ্ছে একটি ট্যাব, পেনড্রাইভ, সনদ, টি-শার্ট ও ব্যাজ।

অনুষ্ঠানটিতে অতিথিরা জানান, ‘ই-অ্যাওয়ারনেস অলিম্পিয়াড’ উদ্যোগটি সফলভাবে নবীন শিক্ষার্থীদের মধ্যে সাইবার সচেতনতা বৃদ্ধি করেছে। এর মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা সাইবারজগতের নিরাপদ ব্যবহার সম্পর্কে জানতে পেরেছে।

বিজ্ঞাপন
বাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন