default-image

পাঁচ দিনের সফরে গতকাল শনিবার বিকেলে বাংলাদেশে এসে পৌঁছেছেন বিশ্বব্যাংকের দক্ষিণ এশীয় অঞ্চলের ভাইস প্রেসিডেন্ট অ্যানেট ডিক্সন। এটা বাংলাদেশে তাঁর প্রথম সফর।
বিশ্বব্যাংক বলছে, বাংলাদেশ ও বিশ্বব্যাংকের দীর্ঘদিনের অংশীদারত্বকে আরও এগিয়ে নিতেই তিনি এ দেশ সফর করছেন। এ সফরে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এবং বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নরের সঙ্গে তাঁর বৈঠক করার কথা রয়েছে।
বিশ্বব্যাংকের বিজ্ঞপ্তিতে অ্যানেট ডিক্সনকে উদ্ধৃত করে বলা হয়েছে, ‘দারিদ্র্য নিরসন এবং নারী উন্নয়ন, গড় আয়ু, সাক্ষরতার হার বৃদ্ধি ও পুষ্টি পরিস্থিতির উন্নতিতে বাংলাদেশ এখন বিশ্বে উদাহরণ। বাংলাদেশের এ উন্নয়ন সম্পর্কে ধারণা নিতেই আমি বাংলাদেশে এসেছি।’ সফরকালে বিশ্বব্যাংকের অর্থ সহায়তা কীভাবে বাংলাদেশের উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে ভূমিকা রাখছে এবং এ দেশের পরবর্তী উন্নয়নপর্বে কীভাবে সংস্থাটি সহায়তা করতে পারে—সে বিষয় নিয়ে সরকার, বেসরকারি খাত ও উন্নয়ন সহযোগীদের সঙ্গে বৈঠক করবেন বলে জানান তিনি।
২৫ ফেব্রুয়ারি অ্যানেট ডিক্সন বাংলাদেশ ছেড়ে যাবেন।
বিশ্বব্যাংক জানিয়েছে, বাংলাদেশের উন্নয়ন ও প্রবৃদ্ধির জন্য ১৯৭২ সাল থেকে এ পর্যন্ত ১ হাজার ৯০০ কোটি ডলার সহায়তা দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে সংস্থাটি। ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট অ্যাসোসিয়েশন (আইডিএ) দরিদ্র দেশগুলোকে যত সহায়তা দিয়েছে, তার মধ্যে সবচেয়ে বেশি পেয়েছে বাংলাদেশ।
প্রসঙ্গত, আইডিএ হলো বিশ্বব্যাংকের একটি তহবিল, যেখান থেকে দরিদ্র দেশগুলোকে নমনীয় শর্তে ঋণ দেওয়া হয়।
বর্তমানে বাংলাদেশের ৩২টি উন্নয়ন প্রকল্পে আইডিএর ৭৫০ কোটি ডলারের অর্থায়ন রয়েছে।

বিজ্ঞাপন
বাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন