default-image

ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় অংশ নিয়ে ২৭টি প্রতিষ্ঠান ১২টি ক্যাটাগরিতে পুরস্কৃত হয়েছে। অবশ্য আরও দুটি ক্যাটাগরিতে যোগ্য প্রতিষ্ঠান পাওয়া যায়নি। আর একটি প্রতিষ্ঠান দুটি ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেয়েছে।
মেলার সমাপনী অনুষ্ঠানে গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে এসব প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিদের হাতে পুরস্কার হিসেবে ক্রেস্ট ও সনদ তুলে দেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদসহ অন্য অতিথিরা।
প্রিমিয়ার প্যাভিলিয়ন ক্যাটাগরিতে প্রথম পুরস্কার পেয়েছে হাতিল কমপ্লেক্স। ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ ও আখতার ফার্নিচার দ্বিতীয় এবং আবুল খায়ের মিল্ক পাউডার তৃতীয় পুরস্কার পেয়েছে। সাধারণ প্যাভিলিয়ন ক্যাটাগরিতে প্রথম ও দ্বিতীয় পুরস্কার পেয়েছে যথাক্রমে কারুপণ্য রংপুর ও বিল্ডট্রেড ফয়েলস। সাধারণ সংরক্ষিত প্যাভিলিয়ন ক্যাটাগরিতে জুট ডাইভারসিফিকেশন প্রমোশন সেন্টার পুরস্কার পেয়েছে।
প্রিমিয়ার মিনি প্যাভিলিয়ন ক্যাটাগরিতে প্রথম বিআরবি কেব্লস, দ্বিতীয় ওকে মোবাইল এবং যৌথভাবে তৃতীয় পুরস্কার পেয়েছে ওরিয়ন ফুটওয়্যার ও ম্যাটাডর বলপেন। সংরক্ষিত মিনি প্যাভিলিয়ন ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেয়েছে মধুমতি ব্যাংক। প্রিমিয়ার স্টল ক্যাটাগরিতে প্রথম আলি ন্যাচারাল অয়েল মিল অ্যান্ড এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ, দ্বিতীয় ও তৃতীয় পুরস্কার পেয়েছে যথাক্রমে প্রিন্স ফুড প্রোডাক্ট ও হেলাল অ্যান্ড ব্রাদার্স।
সাধারণ স্টল ক্যাটাগরিতে প্রথম মেসার্স টুনটুনি, দ্বিতীয় স্মার্ট সক্স ও অন্বেষা করপোরেশন এবং তৃতীয় পুরস্কার পেয়েছে ড্রেস লাইন বাংলাদেশ। মহিলা উদ্যোক্তা ক্যাটাগরিতে প্রথম কুষ্টিয়া হস্তশিল্প, দ্বিতীয় মা এন্টারপ্রাইজ এবং তৃতীয় পুরস্কার পেয়েছে ওয়ান ট্রেড ইন্টারন্যাশনাল। আর বিশেষ পুরস্কার পেয়েছে জয়িতা, চামটেক ইন্ডাস্ট্রিজ এবং এমএক্সএস মর্ডান হারবাল ফুড।
এ ছাড়া মেলায় অংশ নেওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে সরকারের কোষাগারে সর্বোচ্চ মূল্য সংযোজন কর (মূসক) দিয়ে প্রথম পুরস্কার পেয়েছে ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ। দ্বিতীয় ও তৃতীয় পুরস্কার পেয়েছে সিঙ্গার বাংলাদেশ ও র্যাংগস ইলেকট্রনিকস। ফুড স্টল ও সাধারণ মিনি প্যাভিলিয়ন ক্যাটাগরিতে কোনো পুরস্কার দেওয়া হয়নি।

বিজ্ঞাপন
বাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন