পুরো দেশে জিপির ভোলটি, কথা শোনা যাবে পরিষ্কার

বিজ্ঞাপন
default-image

পুরো দেশে ভয়েস ওভার এলটিই (ভোলটি) সেবা চালু করল মোবাইল অপারেটর গ্রামীণফোন। এই সেবার দুটি বড় সুবিধা। প্রথমত, এতে কল সংযোগ হবে খুব তাড়াতাড়ি। আর কথা শোনা যাবে পরিষ্কার।

আজ শনিবার রাতে এক বিজ্ঞপ্তিতে গ্রামীণফোন পুরো দেশে ভোলটি সেবা চালুর কথা জানায়। এতে বলা হয়, এখন থেকে চতুর্থ প্রজন্মের ইন্টারনেট সেবার (ফোরজি/এলটিই) আওতাধীন এলাকায় কথা বলার ক্ষেত্রে গ্রাহক অভিজ্ঞতা উন্নত হবে।

অবশ্য ভোলটি সেবা পেতে হলে গ্রাহকের উপযোগী মুঠোফোন সেট, ফোরজি সিম ও সেবার আওতাধীন এলাকায় থাকতে হবে।

গ্রামীণফোনের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা মোহাম্মদ সাজ্জাদ হাসিব বলেন, 'গ্রাহকদের জন্য বিস্তৃত ফোরজি/এলটিই কাভারেজ নিশ্চিত করতে আমরা নিরলস কাজ করে যাচ্ছি। দেশজুড়ে ভোলটি সেবা চালু গ্রাহকদের উন্নত সেবা দিতে আমাদের সুযোগ করে দিয়েছে।'

গ্রামীণফোন জানিয়েছে, ভোলটি হলো এমন একটি প্রযুক্তি যার মাধ্যমে ফোরজি/এলটিই নেটওয়ার্কে ভয়েস কল করা যায়। এ সেবার মাধ্যমে কলের ক্ষেত্রে দুজন গ্রাহকের কল সংযোগের সময় ৫০ শতাংশ কম লাগে। এ ছাড়া 'এইচডি' মানসম্পন্ন ভয়েস কলের অভিজ্ঞতা পাওয়া যায়।

এখন ফোরজি প্রযুক্তি ভয়েস কল করার সময় নেটওয়ার্ক থ্রিজিতে চলে যায়। ভোলটিতে এই পরিবর্তন প্রয়োজন হবে না। ফলে গ্রাহকেরা কথা বলার সময়ও ফোরজি নেটওয়ার্কের মধ্যে থাকবেন। নিরবচ্ছিন্নভাবে উচ্চগতির ফোরজি ইন্টারনেটের অভিজ্ঞতা নিতে পারেন। এ ছাড়াও ভোলটি গ্রাহকদের ঘরের ভেতরে নেটওয়ার্কের অভিজ্ঞতা আরও উন্নত করতে হবে জানিয়েছে গ্রামীণফোন।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গ্রামীণফোন গ্রাহকেরা নিয়মিত কলরেটে ভোলটি সুবিধা উপভোগ করতে পারবেন। গ্রামীণফোনের ওয়েবসাইটে ভোলটি সমর্থনযোগ্য হ্যান্ডসেটের তালিকা দেওয়া আছে। নতুন হ্যান্ডসেট নেটওয়ার্কে আসলে সে অনুযায়ী ওয়েবসাইটের তথ্যও হালনাগাদ করা হবে। গ্রাহকের কাছে ফোরজি সিম, ফোরজি কাভারেজ এবং প্রয়োজনীয় সেটিংসসহ ভোলটি হ্যান্ডসেট (গ্রামীণফোনের ওয়েবসাইটে তালিকাভুক্ত) থাকলে তারা স্বয়ংক্রিয়ভাবে তারা এ সেবা পাবেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন