পোশাকশ্রমিকেরা ২৭ জুলাই পাবেন বোনাস, মজুরি ৩০ জুলাই

বিজ্ঞাপন
default-image

পবিত্র ঈদুল আজহার আগে পোশাকশিল্পের জন্য ২৭ জুলাইয়ের মধ্যে বোনাস ও ৩০ জুলাইয়ের মধ্যে মজুরি দিতে সময়সীমা নির্ধারণ করা হয়েছে। যদিও অন্য খাতের শ্রমিকদের ২৫ জুলাইয়ের মধ্যে মজুরি-বোনাস দেওয়ার নিদের্শনা দেওয়া হয়েছে।

আবার চলতি মাসের শেষ দিন অথবা আগামী মাসের প্রথম দিন ঈদ হলেও অর্ধেক মজুরি পাবেন পোশাকশ্রমিকেরা। ঈদের ছুটির পর বাকি অর্ধেক মজুরি পাবেন তাঁরা। গত ঈদে অর্ধেক মজুরি পেয়েছিলেন শ্রমিকেরা। বোনাসের বাকি অর্ধেক এখনো পাননি অধিকাংশ পোশাক কারখানার শ্রমিক।

রাজধানীর বিজয়নগরের শ্রম ভবনে আজ সোমবার অনুষ্ঠিত বর্তমান শ্রম পরিস্থিতি ও পবিত্র ঈদুল আজহার উপলক্ষে মজুরি–বোনাস নিয়ে মালিক-শ্রমিক ত্রিপক্ষীয় পরামর্শ পরিষদের (টিসিসি) ৬৫তম সভায় শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ান এই ঘোষণা দেন। মন্ত্রণালয়ের পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি জানান হয়।

শ্রম প্রতিমন্ত্রী বলেন, সরকারি ছুটির সঙ্গে মিলিয়ে শ্রমিকদের ঈদের ছুটি হবে তিন দিন। ঈদে করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে শ্রমিকদের কর্মস্থল এলাকায় থাকতে বলা হয়েছে। অর্থনীতির চাকা সচল রাখতে এবং উৎপাদন স্বাভাবিক রাখতে শ্রমিককে ছাঁটাই না করতে মালিকদের পরামর্শ দেন প্রতিমন্ত্রী।

সভায় মন্ত্রণালয়ের সচিব কে এম আবদুস সালাম, কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের (ডিআইএফই) মহাপরিদর্শক শিবনাথ রায়, বিজিএমইএর সভাপতি রুবানা হক, জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি ফজলুল হক, বাংলাদেশ লেবার ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন খান, ইন্ডাস্ট্রিয়াল বাংলাদেশ কাউন্সিলের মহাসচিব চায়না রহমান, গার্মেন্টস শ্রমিক-কর্মচারী ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক কামরুল আহসান প্রমুখ অংশ নেন।

জানতে চাইলে কামরুল আহসান বলেন, সব খাতের মজুরি ও বোনাস ২৫ জুলাইয়ের মধ্যে পরিশোধের সিদ্ধান্ত হয়েছিল। রপ্তানিমুখী পোশাক খাত সেটির বাইরে নয়। তাদের জন্য আলাদা সময়সীমা নির্ধারণের কোনো যৌক্তিকতা নেই। তারপরও মালিকদের প্রস্তাবের ভিত্তিতে শ্রম প্রতিমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছেন।

প্রসঙ্গত, গত বুধবার শ্রমিক–কর্মচারী ঐক্য পরিষদের (স্কপ) নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করে সব খাতের মালিকদের ২৫ জুলাইয়ের মধ্যে বেতন–ভাতা পরিশোধের আহ্বান জানান শ্রম প্রতিমন্ত্রী। তবে সেই বৈঠকে পোশাকশিল্পের মালিকেরা ছিলেন না।

জানতে চাইলে ডিআইএফই মহাপরিদর্শক শিবনাথ রায় বলেন, ‘ঈদের আগে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে মালিকেরা শ্রমিকদের মজুরি ও বোনাস দিচ্ছেন কি না, সেটি আমরা তদারক করব। সে জন্য ইতিমধ্যে আলাদা টিম গঠন করা হয়েছে।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন