default-image

বাংলাদেশের বন্ড বাজারের উন্নয়নের জন্য আন্তর্জাতিক ফাইন্যান্স করপোরেশনের (আইএফসি) সহযোগিতা চেয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। আইএফসি সহযোগিতা করবে বলে আশ্বস্ত করেছে।

বিশ্বব্যাংক-আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) বার্ষিক সভার অংশ হিসেবে অর্থমন্ত্রীর নেতৃত্বে বাংলাদেশ প্রতিনিধিদল এবং আইএফসির চিফ অপারেটিং অফিসার স্টিফানি ফন ফ্রিডবার্গের নেতৃত্বে আইএফসির প্রতিনিধিদলের মধ্যে গত বৃহস্পতিবার যে ভার্চ্যুয়াল সভা অনুষ্ঠিত হয়, তার পরিপ্রেক্ষিতে অর্থ মন্ত্রণালয় আজ শনিবার এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানিয়েছে।

বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলে ছিলেন বিশ্বব্যাংকে বাংলাদেশের বিকল্প নির্বাহী পরিচালক মোহাম্মদ শফিউল আলম, অর্থসচিব আবদুর রউফ তালুকদার ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সচিব ফাতিমা ইয়াসমিন।

বিজ্ঞাপন

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, অর্থমন্ত্রী বলেন, গত বছর লন্ডন স্টক এক্সচেঞ্জে দুই কোটি মার্কিন ডলার সমমূল্যের বন্ড জারি করতে আইএফসি সহায়তা করেছিল। বিশ্বে প্রথমবারের মতো চালু করা সম্ভব হয়েছিল ‘টাকা বন্ড’। এক বছরে ১০০ কোটি ডলারের বন্ডে উন্নীত করার কথা বলেছিল আইএফসি। করোনার কারণে কিছুটা স্তিমিত হয়ে গেলেও আশা করা যায়, এখন আবার আইএফসি এ খাত সমৃদ্ধ করতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করবে। আইএফসিকে সুদের হার কমানোর অনুরোধও করেন অর্থমন্ত্রী।

বাংলাদেশের বেসরকারি খাতে অব্যাহত সহযোগিতা দিয়ে যাওয়ায় আইএফসির অবদানের প্রশংসা করে অর্থমন্ত্রী বলেন, কোভিড-১৯–এর টিকা আবিষ্কারের সঙ্গে সঙ্গে বাংলাদেশ তা পেতে চায়। এ ব্যাপারেও আইএফসির সহযোগিতা দরকার। তিনি বলেন, কোভিড-১৯ নির্বিচারে বিশ্ব অর্থনীতি ও মানবজীবন হুমকির সম্মুখীন করেছে। দেশও এর ব্যতিক্রম নয়। তারপরও বাংলাদেশ ২০৩০ সালের মধ্যে এসডিজি এবং ২০৪১ সালের মধ্যে একটি উচ্চ আয়ের দেশ অর্জনের প্রত্যাশায় আত্মবিশ্বাসী।

অর্থসচিব আবদুর রউফ তালুকদার বলেন, ‘টিকার জন্য আমাদের বড় অঙ্কের অর্থের সংস্থানের দরকার হবে। দেশীয় তিনটি ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান ইতিমধ্যে তাদের প্রতিষ্ঠানকে টিকা তৈরি করার উপযোগী করতে শুরু করেছে। আশা করা যায়, টিকা আবিষ্কারের ছয় মাসের মধ্যেই এ প্রতিষ্ঠানগুলোও দেশে টিকা প্রস্তুত করতে সক্ষম হবে। যেহেতু আমাদের বিশাল জনসংখ্যার জন্য সব টিকাই আমদানি করা সম্ভব নয়, তাই আমাদের দেশীয় টিকার ওপরও আমরা গুরুত্ব দেব। এসব প্রতিষ্ঠানেরও টিকা প্রস্তুত করতে প্রচুর বিনিয়োগের প্রয়োজন হবে, আইএফসির এ খাতে সহযোগিতা করার সুযোগ রয়েছে।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0