বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার গতকাল পেট্রলে লিটারপ্রতি ৫ রুপি ও ডিজেলে ১০ রুপি হারে উৎপাদন শুল্ক কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ফলে দীপাবলির দিন থেকেই ভারতে পেট্রল ও ডিজেলের দাম ৫ রুপি ও ১০ রুপি করে কমছে। আর একই দিনে বাংলাদেশে ডিজেল ও কেরোসিনের দাম লিটারে ১৫ টাকা বাড়ানো হয়েছে। ইকোনমিক টাইমস ও আনন্দবাজার সূত্রে এই খবর পাওয়া গেছে।

তবে ভারতের বিশ্লেষকেরা বলছেন, বিশ্ববাজারে লাগাতার দাম বৃদ্ধির মধ্যে বিজেপি সরকারের দাম কমানোর সিদ্ধান্তের পেছনে রাজনৈতিক বিবেচনা আছে। সম্প্রতি পশ্চিমবঙ্গে লোকসভা ও বিধানসভার উপনির্বাচনে বিজেপি ধাক্কা খেয়েছে। হিমাচল প্রদেশে বিজেপি সরকারের মুখ্যমন্ত্রী জয়রাম ঠাকুর বলেছেন, মূল্যবৃদ্ধির মূল্য দিতে হয়েছে ভোটে। ২০২২ সালের শুরুতে উত্তর প্রদেশ, পাঞ্জাবসহ পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন। তাই জনতার ক্ষোভ টের পেয়ে নরেন্দ্র মোদি সরকার পেট্রল ও ডিজেলের দাম কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আজ বৃহস্পতিবার পশ্চিমবঙ্গের কলকাতায় লিটারপ্রতি পেট্রলের দাম ৫ দশমিক ৮২ রুপি কমে ১০৪ দশমিক ৬৭ রুপি হয়েছে। ডিজেলের দাম ১১ দশমিক ৭৭ রুপি কমে হয়েছে ৮৯ দশমিক ৭৯ রুপি। তেলের মূল দামের সঙ্গে পরিবহন খরচ এবং কেন্দ্রীয় শুল্ক ধরে যে প্রাথমিক দাম ঠিক হয়, তার ওপর বসে রাজ্যের ভ্যাট। তার সঙ্গে ডিলারদের কমিশন জুড়ে চূড়ান্ত হয় পাম্পে তেলের মোট দাম, যে দামে তেল কেনেন ক্রেতা। পশ্চিমবঙ্গে ভ্যাটের হার লিটারপ্রতি পেট্রলে ২৫ শতাংশ ও ডিজেলে ১৭ শতাংশ। ফলে কেন্দ্রীয় শুল্ক যথাক্রমে ৫ ও ১০ রুপি করে কমার পরে ভ্যাটের হার এক থাকলেও মোট দাম আরও কিছুটা বেশি কমেছে।

এত দিন ভারতের বিরোধী দলশাসিত রাজ্যগুলো কেন্দ্রের কাছে উৎপাদন শুল্ক কমিয়ে পেট্রল-ডিজেলের দাম কমানোর দাবি করছিল। গতকাল কেন্দ্রীয় সরকার উৎপাদন শুল্ক কমিয়ে রাজ্যগুলোর কোর্টে বল ঠেলে দিয়েছে। কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রণালয় বলেছে, রাজ্যগুলোও এবার ভ্যাট কমিয়ে সাধারণ মানুষকে সুরাহা দিক। অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রের খবর, জ্বালানিতে শুল্ক কমানোর ফলে চলতি অর্থবছরে মোদি সরকার প্রায় ৫৫ হাজার কোটি রুপি রাজস্ব হারাতে চলেছে বলে অনুমান।

এদিকে কেন্দ্র সরকারের সিদ্ধান্তের পরে এনডিএ–শাসিত সাতটি রাজ্য—বিহার, আসাম, কর্ণাটক, গোয়া, ত্রিপুরা, মণিপুর ও উত্তর প্রদেশ পেট্রলে ১ রুপি ৩০ পয়সা থেকে শুরু করে ৭ রুপি এবং ডিজেলে ১ রুপি ৯০ পয়সা থেকে ৭ রুপি পর্যন্ত ভ্যাট বা শুল্ক কমিয়েছে। ফলে ওই রাজ্যগুলোতে জ্বালানি তেলের দাম কমেছে। উত্তরাখন্ড সরকার পেট্রলের দাম ২ রুপি কমানোর কথা বললেও ডিজেল নিয়ে কিছু বলেনি। হিমাচল প্রদেশ জানিয়েছে, তারাও দাম কমাচ্ছে।

উল্লেখ্য, বিশ্ব বাজারের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ভারতে জ্বালানির দাম নিয়মিত সমন্বয় করা হয়। দাম কমার পরও ভারতে পেট্রল ও ডিজেলের দাম বাংলাদেশের চেয়ে বেশি।

বাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন