বৈঠক শেষে রুখসানা হাসিন প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমাদের নিজেদের এপিএ নিয়ে আজ আলোচনা হয়েছে। আর আমাদের সঙ্গে তাদের আলোচনাও সময়মতো হবে বলে আশা করছি।’

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ প্রতিবার অর্থবছর শুরুর আগেই এপিএ প্রণয়ন, বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন নির্দেশিকা করে আসছে। এ বিভাগ ২০২২-২৩ অর্থবছরের নির্দেশিকা করেছে ২৯ মার্চ। সরকারের নীতি ও অগ্রাধিকার বিবেচনায় প্রতিটি সংস্থার এপিএর কর্মকৃতি লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করার বাধ্যবাধকতা আছে।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের মতে, সরকারের নির্বাহী ইশতেহার ২০১৮, প্রেক্ষিত পরিকল্পনা ২০২১-৪১, অষ্টম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা ২০২১-২৫, টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট ২০৩০ ও বাংলাদেশ বদ্বীপ পরিকল্পনা ২১০০ হচ্ছে এপিএর ভিত্তি। এপিএর কার্যক্রম নির্ধারণে মধ্যমেয়াদি বাজেট পরিকল্পনা ও কার্যবিধি (অ্যালোকেশন অব বিজনেস) অনুসরণ করতে হবে। বছরের একটি পঞ্জিকাও তৈরি করতে হবে প্রতিটি কার্যালয়কে।

বাংলাদেশ ব্যাংক এখন পর্যন্ত সরকার বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সঙ্গে এপিএ করেনি। এক দফা মেয়াদ বৃদ্ধির পর বাংলাদেশ ব্যাংকের বর্তমান গভর্নর ফজলে কবির আগামী জুলাই মাসে অবসরে যাচ্ছেন। আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সূত্রগুলো জানায়, গভর্নর তাঁর মেয়াদে এটি করতে চান না। তবে গভর্নর কেন চান না, সে ব্যাপারে লিখিতভাবে জানাতে হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক সিরাজুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, ‘বিষয়টি যেহেতু এই প্রথম এসেছে, ফলে এটিকে বাংলাদেশ ব্যাংকের পর্ষদে উপস্থাপন করতে হবে। এর পর সিদ্ধান্ত আসবে।’

২০২২-২৩ অর্থবছরে এপিএ না করলেও ২০২৩-২৪ অর্থবছরে করা হবে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে কিছু বলতে চাননি সিরাজুল ইসলাম।

এদিকে একই বিষয়ে বাংলাদেশ ব্যাংকের পথেই হাঁটছে বিএসইসি। বিএসইসির দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ যে এপিএ করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সঙ্গে, তার সাফল্যও তাদের ওপর নির্ভর করবে। একভাবে তারা এপিএর মধ্যেই আছে।

বিএসইসির মুখপাত্র ও নির্বাহী পরিচালক মো. রেজাউল করিম প্রথম আলোকে বলেন, ‘বিষয়টি নিয়ে বিএসইসির শীর্ষ পর্যায়ে আলোচনা চলছে।’ এর বাইরে তিনি কিছু বলতে রাজি হননি।

আইডিআরএর পরিচালক ও আজ সচিবালয়ে অনুষ্ঠিত বৈঠকে আইডিআরএর পক্ষ থেকে অংশগ্রহকারী মো. শাহ আলম প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমরা আগামী অর্থবছর থেকেই এপিএ করব। তার আগে জুনের দিকে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সঙ্গে চুক্তি হবে একটি।’

বাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন