default-image

পোলট্রি শিল্পের সংশ্লিষ্টদের রাতারাতি বড় হওয়ার প্রতিযোগিতা থেকে বেরিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু। তিনি বলেছেন, ‘ মানুষের জন্য ক্ষতিকর এমন কিছু আপনারা করবেন না। লাভ করেন, কিন্তু রাতারাতি বড় হওয়ার প্রতিযোগিতা থেকে বের হয়ে আসুন।’

প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তরের ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন, লাইসেন্স ও এনওসি ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী। আজ বুধবার প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তরের কনফারেন্স রুমে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

প্রাণীসম্পদ অধিদপ্তর ও বীজ বিস্তার বিস্তার ফাউন্ডেশনের যৌথ উদ্যোগে এ অনুষ্ঠান হয়। এ সময় ‘সফটওয়্যার উন্নয়নের মাধ্যমে প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের অংশীজনের নিবন্ধন পদ্ধতি আধুনিকায়ন শীর্ষক’কর্মশালারও আয়োজন করা হয়।

যেগুলো মানুষের স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর, ধর্মী অনুভূতিতে আঘাত করে এমন কাজ থেকে পোলট্রি ব্যবসায়ীদের বিরত থাকার আহ্বান জানান প্রতিমন্ত্রী আশরাফ আলী খান খসরু। তিনি ডিজিটালাইজেশন প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরে বলেন, এক সময় ডিজিটালাইজেশন নিয়ে মানুষ বিদ্রূপ করত। এখন আর কেউ বলে না। যুব সমাজ ঠিকই লুফে নিয়েছে।

নতুন এই ডিজিটাল সেবার মাধ্যমে গ্রাম পর্যায়ের পোলট্রি শিল্পে জড়িত সবাই কারখানার জন্য আবেদন, লাইসেন্স ও আমদানি করার অনুমতি পত্র পাবেন।

অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডাক্তার হিরেশ রঞ্জন ভৌমিকের সভাপতিত্বে এই প্রকল্পের বিভিন্ন কার্যক্রম ও ফলাফল বিষয়ে উপস্থাপন করেন বীজবিস্তার ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম।
এ সময় প্রাণী সম্পদ অধিদপ্তরের ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশনের সেবা ও কারিগরি বিভিন্ন দিক নিয়ে উপস্থাপনা করেন বীজবিস্তার ফাউন্ডেশনের প্রকল্প পরামর্শক এ এইচ এম তাছলিমা আক্তার। এ সময় তিনি জানান, এই সফটওয়্যারটি তৈরি করেছে ‘এরিনা ফোন বিডি লিমিটেড’।

কর্মশালায় প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা, বাংলাদেশ ভেটেরিনারি কাউন্সিল, বাংলাদেশ ফিড ইন্ডাস্ট্রি অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ ডেইরি অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তরের প্রতিনিধিরা এ উপস্থিত ছিলেন।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0