লাইসেন্স ছাড়া বহুস্তর বিপণন (এমএলএম) পদ্ধতিতে ব্যবসা করা জামিন অযোগ্য অপরাধ। লাইসেন্স ছাড়া কেউ এই ব্যবসা করে থাকলে ও প্রতারণা করে থাকলে কাছাকাছি থানা বা আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে অবহিত করতে সর্বস্তরের জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে সরকার।
এক সরকারি তথ্য বিবরণীতে গতকাল সোমবার এ আহ্বান জানানো হয়।
তথ্য বিবরণীতে বলা হয়, এমএলএম পদ্ধতির ব্যবসায়ের লাইসেন্স দিতে সরকার মাল্টিলেভেল মার্কেটিং কার্যক্রম (নিয়ন্ত্রণ) আইন, ২০১৩ প্রণয়ন করে। এ আইন অনুযায়ী লাইসেন্স ছাড়া এমএলএম ব্যবসা করা যায় না, সরকারের অনুমোদন ছাড়া লাইসেন্স হস্তান্তরও করা যায় না।
এতে আরও বলা হয়, পিরামিডসদৃশ বিপণন কার্যক্রম চালানো, সুনির্দিষ্ট তথ্যসহ মোড়কজাত না করে পণ্য বিক্রি, প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী পণ্য বা সেবা বিক্রি না করা, পণ্য বা সেবার অযৌক্তিক মূল্য নির্ধারণ, নিম্নমানের পণ্য বা সেবা বিক্রি করা এবং অসত্য, কাল্পনিক ও বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে বিজ্ঞাপন প্রচার করা শাস্তিযোগ্য অপরাধ।
এমএলএম লাইসেন্স দেওয়ার দায়িত্বপ্রাপ্ত সংস্থা যৌথ মূলধন কোম্পানি ও ফার্মসমূহের নিবন্ধকের কার্যালয় (রেজসকো)। সংস্থাটি এ পর্যন্ত ওয়ার্ল্ড ভিশন ২১, স্বাধীন অনলাইন পাবলিক লিমিটেড, রিচ বিজনেস সিস্টেম ও এমএক্সএন মডার্ন হারবাল ফুড—এই চারটি প্রতিষ্ঠানকে লাইসেন্স দিয়েছে। সে হিসেবে এখন পর্যন্ত এই চারটি প্রতিষ্ঠানই বৈধ এমএলএম কোম্পানি, বাকিগুলো অবৈধ।
বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, এই চার কোম্পানির বিভিন্ন দিক নিয়েও তদন্ত চলছে। আইনের ব্যত্যয় থাকলে এগুলোর লাইসেন্সও বাতিল হবে। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে তথ্য রয়েছে, দেশের আনাচকানাচে এখনো লাইসেন্স ছাড়াই এমএলএম পদ্ধতির ব্যবসা চলছে। আর লোভের ফাঁদে পড়ে এগুলোতে জড়িয়ে পড়ছে সাধারণ মানুষ।
যোগাযোগ করলে বাণিজ্যসচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমাদের চাওয়া হচ্ছে জনগণের মধ্যে এমএলএমের প্রতারণার ব্যাপারে সচেতনতা বাড়ুক এবং তারা আইন প্রয়োগকারী সংস্থার শরণাপন্ন হোক।’

বিজ্ঞাপন
বাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন