হাসপাতালে পিপিই সরবরাহ শুরু গ্রামীণফোনের

বিজ্ঞাপন
default-image

করোনাভাইরাস সংক্রমণ মোকাবিলায় বাস্থ্য অধিদপ্তর নির্বাচিত হাসপাতালে মেডিকেল গ্রেড-মানসম্পন্ন পেশাদার ব্যক্তিগত সুরক্ষা সামগ্রী বা পিপিই (সম্পূর্ণ প্রতিরোধমূলক পোশাক, এন৯৫ মাস্ক, গ্লাভ ও গগল) সরবরাহ শুরু করেছে গ্রামীণফোন।

আজ বৃহস্পতিবার থেকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সহযোগিতায় এ কার্যক্রম শুরু করে গ্রামীণফোন। প্রথম ধাপে কুয়েত বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসপাতালে ছয় হাজার ইউনিট পিপিই সরবরাহ করা হয়।

এক বিজ্ঞপ্তিতে এ খবর জানিয়ে গ্রামীণফোন বলেছে, করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। এ অবস্থায় পিপিই স্বাস্থ্য সেবাদাতাদের চিকিৎসাসেবা দেওয়ার সময় আক্রান্ত হওয়া থেকে সুরক্ষিত রাখবে।

গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী ইয়াসির আজমান বলেন, 'বৈশ্বিক মহামারির এ সময়ে সম্মুখসারির স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষা দিতে বাংলাদেশে জরুরি ভিত্তিতে পিপিই সরবরাহ প্রয়োজন। করোনাভাইরাস মোকাবিলায় আমাদের স্বাস্থ্যকর্মীরাই সম্মুখসারিতে রয়েছে। এ সময় সকল ধরনের সহযোগিতা প্রদানে আমরা অঙ্গীকারবদ্ধ। আজকে আমরা প্রথম ধাপের উপকরণ বিতরণ শুরু করেছি এবং ক্রমান্বয়ে বাকি ধাপগুলোও সম্পন্ন করবো।'

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক (ডিজি) অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ বলেন, 'আমরা এক অভূতপূর্ব চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়েছি। এ অবস্থায় মানসম্পন্ন মেডিকেল গ্রেড পিপিই এবং অন্যান্য প্রয়োজনীয় সুরক্ষা সামগ্রীর নিশ্চিত করা আমাদের প্রধান দায়িত্ব। গ্রামীণফোনের এই উদ্যোগকে আমরা সাধুবাদ জানাই; পাশাপাশি, আমরা অন্যান্য প্রতিষ্ঠানসমূহকেও এ পরিস্থিতি মোকাবিলায় এগিয়ে আসার আহ্বান জানাই।'

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন