চলতি ২০১৪-১৫ অর্থবছরে মোট দেশজ উৎপাদনে (জিডিপি) প্রবৃদ্ধির হার ৬ শতাংশের ওপরেই থাকবে বলে মত দিয়েছেন কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর আতিউর রহমান। এমনকি বছর শেষে প্রবৃদ্ধির হার ৬ দশমিক ৫ শতাংশের যে প্রাক্কলন করা হয়েছে, তাও অর্জিত হতে পারে মনে করেন তিনি।
‘আইএফআইসি-কৃষি শিল্প’ এ ঋণ সেবার উদ্বোধন উপলক্ষে স্থানীয় এক হোটেলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে গভর্নর গতকাল মঙ্গলবার এ কথা বলেন। ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের (এসএমই) বিকাশে আইএফআইসি এ সেবাটি তৈরি করেছে।
আইএফআইসি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) শাহ আলম সারওয়ার অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। সিরডাপের মহাপরিচালক সেসেপ ইফেন্দি, বাংলাদেশ ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক স্বপন কুমার বক্তব্য দেন। উপস্থিত ছিলেন আইএফআইসি ব্যাংকের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এবং বিভিন্ন কৃষি শিল্প উদ্যোক্তা ও নারী উদ্যোক্তারা।
আতিউর বলেন, গ্রামাঞ্চলে কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও দারিদ্র্য বিমোচনের লক্ষ্যে বাংলাদেশ ব্যাংকের নিজস্ব উৎস থেকে ‘কৃষিজাত পণ্য প্রক্রিয়াজাতকরণের জন্য মফস্বলভিত্তিক শিল্প স্থাপনে পুনঃ অর্থায়ন স্কিম’ নামে ২০০১ সালে ১০০ কোটি টাকার বিশেষ তহবিল চালু করা হয়। ২০১২-এর ডিসেম্বরে তা বাড়িয়ে ২০০ কোটি এবং ২০১৩-এর জুলাই মাসে ৪০০ কোটি টাকায় উন্নীত করা হয়েছে।
আইএফআইসি ব্যাংক কৃষি খাতের উন্নয়নে তিনটি এসএমই সেবা ‘কৃষি শিল্প’, ‘প্রান্ত নারী’ ও ‘সুবর্ণ গ্রাম’ চালু করেছে। অনুষ্ঠানে ২৫ জন কৃষি শিল্প উদ্যোক্তার মাঝে ২০ কোটি টাকার ঋণ বিতরণ করা হয়েছে।
গভর্নর বলেন, দেশের চলমান পরিস্থিতিতে গ্রামীণ অর্থনীতির উন্নয়নে ব্যাংকটির এ উদ্যোগ খুবই সময়োপযোগী। এ সেবাগুলো দেশের কৃষিভিত্তিক শিল্প উন্নয়নে গুরত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। তিনি বলেন, আইএফআইসি ব্যাংক যদি এ ঋণ বিতরণের বিপরীতে বাংলাদেশ ব্যাংকের কাছে পুনঃ অর্থায়ন সুবিধা চায়, তাহলে সেটি ইতিবাচকভাবে বিবেচনা করা হবে।

বিজ্ঞাপন
বাণিজ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন