বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

কারণ, রপ্তানিতে ভালো প্রবৃদ্ধি আছে। এ সময়ে অপ্রয়োজনীয় ও বিলাসদ্রব্য আমদানি পরিহার করতে পারলে ভালো হয়। তাহলে ডলারের ওপর চাপ কমে যাবে।
আর পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ায় বিদেশে ভ্রমণ, চিকিৎসা, শিক্ষা, প্রশিক্ষণ, সভা ও ব্যবসায়িক ভ্রমণ আবার শুরু হয়েছে। বিদেশে যাওয়ার প্রবণতা বেড়েছে। এ কারণে খোলাবাজারে ডলারসহ বিভিন্ন বিদেশি মুদ্রার দাম বাড়ছে। হাতে হাতে বিদেশি মুদ্রা এলে দাম কমে যাবে। এ ছাড়া এ বাজার নিয়ন্ত্রণের কোনো পদ্ধতি নেই।

বিদেশি মুদ্রা এলেই কেবল দাম কমবে। ব্যাংকের বাইরে খোলা বাজার বা মানি চেঞ্জারে যে ডলার পাওয়া যাচ্ছে তার সঙ্গে ব্যাংকের ডলারের দামের তেমন সম্পর্ক নেই। অনেক দিন পর বিদেশে যাওয়া চালু হয়েছে। শিক্ষা, চিকিৎসা ও পর্যটনের জন্য মানুষ বিদেশে যাচ্ছে এ জন্য খোলা বাজারেও দাম বেড়ে গেছে। এ দাম নিয়ন্ত্রণের জন্য আমাদের হাতে কোনো কৌশল নেই। শুধুমাত্র সরবরাহ ভালো হলেই এই দাম কমতে পারে।

বিশ্লেষণ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন