default-image

করোনা দেশের মানুষের জীবন ও জীবিকার ওপর আঘাত হেনেছে। বিশেষ করে গত এপ্রিল থেকে জুন পর্যন্ত সবচেয়ে খারাপ অবস্থা ছিল। ২০১৯ সাল শেষে, অর্থাৎ করোনার আগে দারিদ্র্যের হার ১৯ শতাংশে নেমেছিল।

করোনার সময়ে গবেষণা করে দেশের সরকারি ও বিভিন্ন বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠানগুলো বলেছে, দারিদ্র্য বেড়েছে। তবে একেক সংস্থার হিসাবে দারিদ্র্য বৃদ্ধির একেক হার পাওয়া গেছে। সরকারি প্রতিষ্ঠান পরিকল্পনা কমিশন সবচেয়ে কম দারিদ্র্য বৃদ্ধির কথা বলেছে। তাদের মতে, করোনায় দারিদ্র্যের হার বেড়ে ২৯ শতাংশ হয়েছে। আর পিপিআরসি ও বিআইজিডির জুন মাসের এক যৌথ গবেষণায় বলা হয়েছে, দারিদ্র্য বেড়ে ৪৩ শতাংশ হয়েছে।

সিপিডির দাবি, এ হার ৩৫ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) এক জরিপে দেখা গেছে, পরিবারভিত্তিক মাসিক আয় প্রায় ৪ হাজার টাকা কমে সাড়ে ১৫ হাজার টাকা হয়েছে। বেকারত্ব ১০ গুণ বেড়েছে।

অর্থনীতিবিদেরা বলছেন, সরকারি উন্নয়ন কৌশলে গলদ থাকায় করোনার মতো আঘাতে অর্থনীতি সহ্য করতে পারেনি।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0