বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বাজারে কোথা থেকে টাকা আসছে তা সুনির্দিষ্ট করে জানা আমার পক্ষে এখন সম্ভব না।কিন্তু বাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থার উচিত নিজেদের প্রয়োজনে সেটা খতিয়ে দেখা।খতিয়ে দেখা জরুরি এ কারণে যে, এ টাকা কেন ও কীসের জন্য বাজারে আসছে সেটি জানা-বোঝা দরকার নিয়ন্ত্রক সংস্থার। তা না হলে হঠাৎ আসা টাকা যদি হঠাৎই চলে যায়,তাতে বাজার আবারও খারাপ অবস্থায় চলে যেতে পারে। সেটি তখন নিয়ন্ত্রক সংস্থার মাথাব্যথার কারণ হবে।

তবে আমি এটা মনে করি, বাজার বর্তমানে যেখানে রয়েছে সেখানে সার্বিকভাবে উদ্বিগ্ন হওয়ার কিছু নেই।কারণ এখনো অনেক শেয়ার বিনিয়োগযোগ্য অবস্থায় রয়েছে। তবে যেভাবে বাছবিচার ছাড়া সব শেয়ারের দাম বাড়ছে, সেটি উদ্বেগের। তাই বিনিয়োগের আগে বিনিয়োগকারীদের এখন সতর্ক থাকতে হবে। ভালো শেয়ারে বিনিয়োগই বিনিয়োগকারীদের জন্য একমাত্র রক্ষাকবচ। কারসাজির কারণে খারাপ শেয়ারের দাম যেমন দ্রুত বাড়ে তেমনি কমার সময়ও তা দ্রুত কমে। আবার ওসব শেয়ার থেকে ভালো রিটার্ন পাওয়ার সম্ভাবনা কম। তাই ঊর্ধ্বমুখী বর্তমান বাজারে ভালো শেয়ারে বিনিয়োগই বিনিয়োগকারীদের লক্ষ্য হওয়া উচিত।

অনেকে বলছেন, করোনার কারণে ব্যবসা মন্দা, তাই ব্যবসায়ী ও শিল্পপতিদের একটি অংশ শেয়ারবাজারমুখী হয়েছেন। আবার ব্যাংকের বিনিয়োগও বাড়ছে বাজারে। এটি শেয়ারবাজারের জন্য ভালো খবর হলেও দেশের অর্থনীতির জন্য মোটেই সুখবর নয়।কারণ শিল্প খাত, ব্যবসা-বাণিজ্যে স্থবিরতা মানে মন্দার আশঙ্কা।
তাই বাজারের জন্য এখন বড় চ্যালেঞ্জ, যে টাকা আসছে, তা স্বল্পকালীন লাভের জন্য নাকি দীর্ঘ মেয়াদে বিনিয়োগ হচ্ছে। স্বল্পকালীন হলে বাজারের ক্ষতি আর দীর্ঘ মেয়াদে বিনিয়োগ হলে বাজারে স্থিতিশীলতা আসতে পারে।

বিশ্লেষণ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন