বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
আর্থিক প্রতিষ্ঠানটির আমানতকারীদের আবেদনে সব পক্ষের শুনানির পর বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের একক ভার্চ্যুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ সোমবার এ আদেশ দিয়েছেন।

হাইকোর্টের আদেশে গঠিত বোর্ডে কারা থাকবেন, তা লিখিত আদেশে জানা যাবে বলে সংশ্লিষ্ট আইনজীবীরা জানান। এ বিষয়ে আমানতকারীদের আইনজীবী আহসানুল করিম আজ প্রথম আলোকে বলেন, আমানতকারীদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত প্রতিষ্ঠানটিকে আবারও চালু করার আদেশ দিয়েছেন। চালু করার পর প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনার জন্য একজন আইনজীবী বা অবসরপ্রাপ্ত বিচারকের নেতৃত্বে একটি বোর্ড গঠনের কথাও বলা হয়েছে। কমিটিতে একজন নিরীক্ষক ও আমানতকারীদের প্রতিনিধিও থাকবেন।

আমানতকারীদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত প্রতিষ্ঠানটিকে আবারও চালু করার আদেশ দিয়েছেন। চালু করার পর প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনার জন্য একজন আইনজীবী বা অবসরপ্রাপ্ত বিচারকের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠনের কথাও বলা হয়েছে।
আহসানুল করিম, আইনজীবী

আইনজীবী আহসানুল করিম আরও বলেন, নতুন বোর্ড প্রতিষ্ঠানটির ঋণ গ্রহীতাদের কাছ থেকে ঋণ আদায়ে প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন। পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানটিতে নতুন করে বিনিয়োগ করতে আগ্রহী ও যোগ্য বিনিয়োগকারী খুঁজে বের করে তাঁদের হাতে প্রতিষ্ঠানটির ভার হস্তান্তর করবেন।
অনিয়ম-দুর্নীতির কারণে গ্রাহকদের টাকা ফেরত দিতে ব্যর্থ এ প্রতিষ্ঠানটিকে ২০১৯ সালে অবসায়নের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সরকার। ১৯৯৭ সালের ২৪ নভেম্বর আর্থিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে পিপলস লিজিংয়ের অনুমোদন দিয়েছিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক, দেখভালের দায়িত্বও ছিল এ সংস্থার। তদারকি দুর্বলতা ও পরিচালকদের অনিয়মের কারণে প্রতিষ্ঠানটি এখন দেউলিয়া। আদালত আদেশে প্রতিষ্ঠানটিতে একজন অবসায়ক নিযুক্ত করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

অনিয়ম-দুর্নীতির কারণে গ্রাহকদের টাকা ফেরত দিতে ব্যর্থ এ প্রতিষ্ঠানটিকে ২০১৯ সালে অবসায়নের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল সরকার। ১৯৯৭ সালের ২৪ নভেম্বর আর্থিক প্রতিষ্ঠান হিসেবে পিপলস লিজিংয়ের অনুমোদন দিয়েছিল কেন্দ্রীয় ব্যাংক, দেখভালের দায়িত্বও ছিল এ সংস্থার। তদারকি দুর্বলতা ও পরিচালকদের অনিয়মের কারণে প্রতিষ্ঠানটি এখন দেউলিয়া।

এদিকে প্রতিষ্ঠানটিকে অবসায়ন না করে নতুন করে পুনর্গঠন করতে চাইছে সরকার। তারই অংশ হিসেবে প্রতিষ্ঠানটির প্রকৃত ক্ষতির পরিমাণ চিহ্নিত করতে কাজ শুরু হয়েছে। অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা যায়, পিপলস লিজিংয়ের সাবেক পরিচালক আলমগীর শামসুল আলামিন এই পুনর্গঠন প্রক্রিয়ায় নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তাঁর সঙ্গে রয়েছেন আর্থিক খাতের সফটওয়্যার সরবরাহকারী ফ্লোরা টেলিকমের কর্ণধার মোস্তফা রফিকুল ইসলাম ও শেয়ারবাজারের সম্পদ ব্যবস্থাপনাকারী প্রতিষ্ঠান এলআর গ্লোবাল বাংলাদেশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রিয়াজ ইসলাম। ইতিমধ্যে নিরীক্ষা প্রতিষ্ঠান হাওলাদার ইউনুস অ্যান্ড কোম্পানিকে প্রতিষ্ঠানটির নিরীক্ষার জন্য নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

ব্যাংক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন