বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তারা গত ২০ সেপ্টেম্বর ইউনিয়ন ব্যাংকের গুলশান শাখা পরিদর্শনে গিয়ে ভল্ট খুলে টাকা গুনে বড় গরমিল দেখতে পান। শাখাটির নথিপত্রে ভল্টে ৩১ কোটি টাকা থাকার কথা বলা হলেও কেন্দ্রীয় ব্যাংকের কর্মকর্তারা পেয়েছেন ১২ কোটি টাকা। বাকি ১৯ কোটি টাকার ঘাটতি সম্পর্কে শাখাটির কর্মকর্তারা কেন্দ্রীয় ব্যাংকের পরিদর্শক দলকে সঠিক জবাব দিতে পারেননি।

এ বিষয়ে সংবাদ প্রকাশ হলে ব্যাংকটির পক্ষ থেকে জানানো হয়, নির্ধারিত সময়ের পরে ভিআইপি গ্রাহককে ভল্ট থেকে টাকা দেওয়া হয়েছে। এ জন্য তিন কর্মকর্তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘ইউনিয়ন ব্যাংকের ভল্টে টাকা গরমিলের ঘটনা আমাদের পরিদর্শনে ধরা পড়লে ব্যাংকটি প্রাথমিকভাবে একটি জবাব দিয়েছে। সেখানে তারা নতুন করে কমিটি গঠনের মাধ্যমে বিষয়টি উদ্‌ঘাটনের কথা বলেছে। এ জন্য বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে বিষয়টি দেখা হচ্ছে না।’

ব্যাংক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন