গত ১১ জুন আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের উপসচিব মো. জেহাদ উদ্দীন স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে আবদুর রউফ তালুকদারকে গভর্নর হিসেবে নিয়োগের বিষয়টি চূড়ান্ত করা হয়। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, সরকারি চাকরি থেকে অবসর গ্রহণ এবং অন্যান্য প্রতিষ্ঠান ও সংগঠনের সঙ্গে কর্ম-সম্পর্ক পরিত্যাগের শর্তে তাঁকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। যোগদানের তারিখ থেকে চার বছরের জন্য তাঁকে বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

সেই হিসাবে আজ থেকে আগামী চার বছরের জন্য গভর্নরের দায়িত্বভার গ্রহণ করেন আবদুর রউফ তালুকদার।

বাংলাদেশ ব্যাংক সূত্রে জানা যায়, আজ সকাল ৯টা ৫৭ মিনিটে আবদুর রউফ তালুকদার নতুন কর্মস্থলে পৌঁছান। এ সময় ডেপুটি গভর্নরসহ কেন্দ্রীয় ব্যাংকের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা তাঁকে স্বাগত জানান। পরে তিনি বাংলাদেশ ব্যাংকের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন।

বিসিএস ১৯৮৫ ব্যাচের কর্মকর্তা আবদুর রউফ তালুকদার সরকারি চাকরিতে যোগ দিয়েছিলেন সচিবালয় ক্যাডারের কর্মকর্তা হিসেবে। এ ক্যাডার বিলুপ্ত হয়ে প্রশাসন ক্যাডারের সঙ্গে একীভূত হয়ে গেছে প্রায় ২০ বছর আগে। কর্মজীবনে তিনি শিল্প মন্ত্রণালয়ের পেটেন্ট, ডিজাইন ও ট্রেডমার্কস অধিদপ্তরের উপনিবন্ধক, মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশ দূতাবাসের প্রথম সচিব, খাদ্য মন্ত্রণালয় ও তথ্য মন্ত্রণালয়ে সহকারী সচিব, অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগের যুগ্ম সচিব ও অতিরিক্ত সচিব ছিলেন। সরকারি চাকরি থেকে তাঁর স্বাভাবিকভাবে অবসরে যাওয়ার কথা ২০২৩ সালের আগস্টে। স্বাভাবিক অবসরে যাওয়ার আগে সরকার তাঁকে গভর্নর হিসেবে নিয়োগ দেয়।

৩ জুলাই সদ্য বিদায়ী গভর্নর ফজলে কবির অবসরে যান। আজ আবদুর রউফ তালুকদারের যোগদানের মধ্য দিয়ে গভর্নরের শূন্য পদটি পূর্ণ হলো।

ব্যাংক থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন