দেশের অর্থনীতিতে নারীদের অংশগ্রহণ বৃদ্ধির জন্য নারীবান্ধব বাজার নিশ্চিত করা জরুরি। গতকাল মঙ্গলবার একশনএইড বাংলাদেশের আয়োজনে ‘গ্রামীণ হাট-বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটিতে নারী উদ্যোক্তাদের প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিতকরণ’ শীর্ষক এক ওয়েবিনারে এ মতামত উঠে আসে।

ওয়েবিনারে বাংলাদেশে নেদারল্যান্ডস দূতাবাসের আর্থিক সহায়তায় পরিচালিত একশনএইড বাংলাদেশের মেকিং মার্কেট ওয়ার্ক ফর ওমেন প্রকল্পে অংশগ্রহণকারী মোছা. জাহানারা বেগম, গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার গ্রামীণ নারী উদ্যোক্তা ও বাজার কমিটির সদস্য এবং স্থানীয় সরকারের প্রতিনিধিসহ সরকারি–বেসরকারি পর্যায়ের সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

একশনএইড বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর ফারাহ কবিরের সভাপতিত্বে ওয়েবিনারে প্রকল্পের কার্যক্রম উপস্থাপনা করেন প্রকল্প সমন্বয়কারী শওকত আকবর ফকির। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে নেদারল্যান্ডস দূতাবাসের পক্ষ থেকে ওসমান হারুনী হাট-বাজার ব্যবস্থাপনা, ইজারা পদ্ধতি এবং হাট–বাজার থেকে প্রাপ্ত আয় বণ্টন সম্পর্কিত নীতিমালা -২০১১–এর সঠিক বাস্তবায়নের জন্য প্রধান অতিথির দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। তিনি এ বিষয়ে নেদারল্যান্ডস দূতাবাসের সহায়তার কথাও উল্লেখ করেন।

বিজ্ঞাপন

প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (ইউনিয়ন পরিষদ অধিশাখা) মোস্তাকীম বিল্লাহ ফারুকী বলেন, গ্রামীণ নারী উদ্যোক্তা উন্নয়নে নারীবান্ধব হাটবাজারের গুরুত্ব অনস্বীকার্য এবং বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটিতে নারীদের প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করা জরুরি। সরকারি হাটবাজারের ব্যবস্থাপনা–সম্পর্কিত ওই নীতিমালা প্রণয়ন ও বাস্তবায়ন করে সরকার নারীবান্ধব হাটবাজার প্রবর্তন এবং বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটিতে নারীদের প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করতে কাজ করছে। নীতিমালা অনুসারে বাজার কমিটিতে নারী উদ্যোক্তাদের প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করতে একশনএইড বাংলাদেশের প্রস্তাব অনুসারে স্থানীয় প্রশাসনকে নির্দেশনা প্রদান করা হবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

ওয়েবিনারের সভাপতি ফারাহ কবিরের বাজার ব্যবস্থাপনা কমিটিতে নারীদের অর্থবহ প্রতিনিধিত্ব নিশ্চিত করার জন্য সরকারি-বেসরকারি সমন্বয়ের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন এবং নারীদেরও উদ্যোগী হয়ে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

করপোরেট সংবাদ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন