বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিশেষ আলোচ্য সূচির আওতায় বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের নির্দেশনা অনুযায়ী ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড এবং ওয়ালটন প্লাজার মধ্যে ১০ শতাংশের বেশি লেনদেন এবং কোম্পানির আইকনিক টাওয়ার নির্মাণের জন্য জমি কেনার সিদ্ধান্তটি সাধারণ শেয়ারহোল্ডারদের সংখ্যাগরিষ্ঠতার ভিত্তিতে অনুমোদিত হয়। একই সঙ্গে শেয়ারহোল্ডারদের সম্মতিতে কোম্পানিটির নাম ‘ওয়ালটন হাই–টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড’-এর পরিবর্তে ‘ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ পিএলসি’ করার বিষয়টিও অনুমোদন পায়।

এজিএমে সভাপতিত্ব করেন ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান এস এম নূরুল আলম রেজভী। এতে উপস্থিত ছিলেন ভাইস চেয়ারম্যান এস এম শামছুল আলম; ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোলাম মুর্শেদ; পরিচালক এস এম আশরাফুল আলম, এস এম মাহবুবুল আলম, এস এম রেজাউল আলম, এস এম মঞ্জুরুল আলম, তাহমিনা আফরোজ, রাইসা সিগমা; স্বতন্ত্র পরিচালক আহসান এইচ মনসুর, অধ্যাপক মো. জাকির হোসেন ভুঁইয়া, অধ্যাপক এম সাদিকুল ইসলাম, শামসুল আলম মল্লিক; অ্যাডিশনাল ম্যানেজিং ডিরেক্টর আবুল বাশার হাওলাদার; ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর নজরুল ইসলাম সরকার, ইভা রিজওয়ানা, এমদাদুল হক সরকার, হুমায়ূন কবীর, আলমগীর আলম সরকার; চিফ ফিন্যান্সিয়াল অফিসার মোহাম্মদ ওমর ফারুক; কোম্পানি সচিব রফিকুল ইসলাম; হেড অব ইন্টারনাল অডিট সিরাজুল ইসলাম প্রমুখ।
যোগদানের মাধ্যমে বার্ষিক সাধারণ সভাকে সাফল্যমণ্ডিত করায় কোম্পানির চেয়ারম্যান সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ জনান।

সভায় ব্যবস্থাপনা পরিচালক কোম্পানির ভবিষ্যৎ কর্মপরিকল্পনাগুলো শেয়ারহোল্ডারদের সামনে উপস্থাপন করেন এবং তাঁদের বিভিন্ন মন্তব্য ও প্রশ্নের উত্তর দেন।

সভায় শেয়ারহোল্ডাররা ওয়ালটন হাই-টেক ইন্ডাস্ট্রিজের পারফরম্যান্সে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন এবং ভবিষ্যতেও এ ধারা অব্যাহত রাখার আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
২০২১ সালের ৩০ জুন সমাপ্ত হিসাববছরে ওয়ালটনের শেয়ারপ্রতি মুনাফা (বেসিক ইপিএস) হয়েছে ৫৪ দশমিক ২১ টাকা। আগের বছর ইপিএস ছিল ২৪ দশমিক ২১ টাকা। আলোচ্য সময়ে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি পুনর্মূল্যায়িত নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়িয়েছে ৩৩১ দশমিক ৫৯ টাকা, যা আগের অর্থবছরে ছিল ২৬৪ দশমিক ৪৮ টাকা। বিজ্ঞপ্তি

করপোরেট সংবাদ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন