কোভিড দুর্যোগের সময় দেশের মানুষের কল্যাণে অবদান রাখার স্বীকৃতি হিসেবে ‘বেস্ট ই-ক্যাশ/মানি অ্যান্ড সিএসআর অ্যাওয়ার্ড’ পেয়েছেন মোবাইল আর্থিক সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান বিকাশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) কামাল কাদীর।
১৪ ফেব্রুয়ারি রাজধানীর একটি হোটেলে ‘গ্লোবাল বিজনেস সিএসআর অ্যাওয়ার্ড-২০২১’ অনুষ্ঠানে তাঁকে এই সম্মাননা দেওয়া হয়।
করোনা চিকিৎসায় দেশের শীর্ষস্থানীয় হাসপাতালগুলোর সক্ষমতা বৃদ্ধিতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ঢাকা শিশু হাসপাতাল, সম্মিলিত সামরিক হাসপাতাল ও কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালে ৩০টি হাই ফ্লো অক্সিজেন ভেন্টিলেটর দেয় বিকাশ। পাশাপাশি বারডেমের সহযোগী ডায়াবেটিক হাসপাতালে (বিআইএসএইচএস জেনারেল হাসপাতাল) অক্সিজেন প্ল্যান্ট নির্মাণ করে দেয় তারা। এক বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানিয়েছে বিকাশ।
এ ছাড়া আলিবাবা ফাউন্ডেশন ও জ্যাক মা ফাউন্ডেশনের দেওয়া ৩৫০টি ভেন্টিলেটরসহ ৯ লক্ষাধিক চিকিৎসাসামগ্রী বিকাশের ব্যবস্থাপনায় প্রধানমন্ত্রীর তহবিল ও সরকারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। এ ছাড়া কোভিডের সময় সেনা কল্যাণ সংস্থার মাধ্যমে পাঁচ হাজার পরিবারের খাদ্যসহায়তাও নিশ্চিত করে বিকাশ। একই সময়ে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের হাসপাতাল নির্মাণেও অর্থ সহায়তা দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

default-image
বিজ্ঞাপন

বিকাশের মালিকানার অন্যতম অংশীদার আলিবাবা গ্রুপের অংশীদার অ্যান্ট গ্রুপ।
অনুষ্ঠানে স্থানীয় সরকার, পল্লি উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম প্রধান অতিথি ছিলেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী মো. এনামুর রহমান, তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান, বাংলাদেশ কমিউনিকেশন স্যাটেলাইট কোম্পানির চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ।
গত বছর দীর্ঘ সাধারণ ছুটির সময় আর্থিক লেনদেন স্বাভাবিক রাখতে নিরবচ্ছিন্ন সেবা নিশ্চিত করাসহ সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে (সিএসআর) বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করে বিকাশ। এ ছাড়া সরকার দরিদ্র পরিবারগুলোকে যে নগদ সহায়তা দিয়েছে, সেই অর্থ পৌঁছে দিতে বিকাশ বড় অঙ্কের ভর্তুকি দিয়েছে।

করপোরেট সংবাদ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন