নকশা

হাতিলের বেডরুম ফার্নিচারের মধ্যে কম কারুকাজ করা বেডের চাহিদা বেশি। এ ব্যাপারে হাতিলের পরিচালক শফিকুর রহমান বলেন, ‘এখন থেকে ২৫-৩০ বছর আগে বেশি কারুকাজ করা ফার্নিচার মানুষ পছন্দ করত। ধীরে ধীরে আমাদের রুচি ও পছন্দের পরিবর্তন হয়েছে। বদল হয়েছে চাহিদারও। এখন কম নকশার ফার্নিচারই মানুষ বেশি পছন্দ করে। এগুলো রক্ষণাবেক্ষণ করাও সহজ।’

শফিকুর রহমান আরও বলেন, ‘বেডরুমের জন্য একই নকশার সব ফার্নিচার কেনার সুযোগ রয়েছে হাতিলে। ফার্নিচার ডিজাইনের সময় আমরা অনেক কিছু বিবেচনায় রাখি। হাতিলের নিজস্ব ডিজাইন টিম ও কোয়ালিটি টিম আছে। যারা সম্মিলিতভাবে নতুন ডিজাইন প্রস্তুত করে সেটি পরীক্ষা–নিরীক্ষার পর ফার্নিচারটি বাজারে আনা হয়।’

দরদাম

বেডরুমের ফার্নিচার রয়েছে বিভিন্ন দামের। ১৩ হাজার ৫০০ টাকা থেকে শুরু করে ৬৫ হাজার টাকায় পাওয়া যাবে বেড। নকশা ও আকারের ভিন্নতায় দামের তারতম্য রয়েছে ওয়ার্ডরোবে। ২০ হাজার টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৭০ হাজার টাকায় পাওয়া যাবে হাতিলের ওয়ার্ডরোব। টিভি ক্যাবিনেটের দাম ১৫ হাজার ৩৪৫ টাকা থেকে ৪৯ হাজার ৪৯৫ হাজার টাকা।

বিক্রয়োত্তর সেবা

হাতিলের সব ফার্নিচারে রয়েছে এক বছরের বিক্রয়োত্তর সেবা (ওয়ারেন্টি)। ক্রেতারা চাইলে বাসায় গিয়েও হাতিল এই সেবাটি দেয়। গ্রাহকের ব্যবহারজনিত কারণে যদি সমস্যা হয়, সেটাও হাতিলের পক্ষ থেকে নির্দিষ্ট মজুরির বিনিময়ে ঠিক করে দেওয়া হয়। একই সুবিধা রয়েছে বিক্রয়োত্তর সেবার সময় শেষ হয়ে গেলেও।

ঈদ অফার

প্রতিবারের মতো এবারের ঈদেও আকর্ষণীয় অফার দিয়েছে হাতিল। ‘উৎসবে চাই নতুন ফার্নিচার’ শিরোনামে এ অফারে হাতিলের সব পণ্য পাওয়া যাবে ৫ থেকে ১০ শতাংশ ছাড়ে।

ইএমআই সুবিধা

ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করেও কেনা যাবে হাতিলের ফার্নিচার। হাতিলের সঙ্গে ১৮টি ব্যাংকের ইএমআই সুবিধা রয়েছে। ৩ থেকে ১২ মাসের শূন্য শতাংশ সুবিধায় ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে হাতিলের পণ্য কিনতে পারবেন ক্রেতারা। এ ছাড়া প্রাইম ব্যাংকের ক্রেডিট কার্ড ব্যবহার করে হাতিলের ফার্নিচার কিনলে থাকছে ক্যাশব্যাক অফার।
সারা দেশে ৭৪টি এবং দেশের বাইরে ২০টি শোরুম রয়েছে হাতিলের। এ ছাড়া গ্রাহকেরা হাতিলের ওয়েবসাইট এবং ফেসবুকে পেজ থেকেও হাতিলের বেডরুমের আসবাব কিনতে পারবেন।

করপোরেট সংবাদ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন