বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ভ্যাট আইন অনুযায়ী, আমদানিকারক ও উৎপাদন, পাইকারি বা সরবরাহ, এমনকি খুচরা পর্যায়ের ব্যবসায়ীদের বেচাকেনা বছরে ৫ কোটি টাকা পেরিয়ে গেলেই এই সফটওয়্যার ব্যবহার করতে হবে। এখন পর্যন্ত প্রায় ২ লাখ ৮০ হাজার প্রতিষ্ঠানের ব্যবসায় শনাক্তকরণ নম্বর (বিআইএন) নিবন্ধন আছে। এই বিআইএন নিবন্ধনই ভ্যাট নিবন্ধন হিসেবে পরিচিত। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে যাদের বার্ষিক লেনদেন ৫ কোটি টাকার বেশি, তাদের নতুন সফটওয়্যার ব্যবহার করতে হবে। অর্থাৎ, প্রতি মাসে যাদের বেচাকেনা গড়ে ৪২ লাখ টাকা পেরিয়ে যায়, তাদের জন্যই এ সফটওয়্যার।

এনবিআর সূত্রে জানা গেছে, সফটওয়্যারের প্রধান বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, এতে কেনার হিসাব রেজিস্ট্রার ও বিক্রয় চালানে কোনো তথ্য এন্ট্রি দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তা স্বয়ংক্রিয়ভাবে সব ধরনের হিসাবে হালনাগাদ (আপডেট) হয়ে যাবে। সফটওয়্যারে বিভিন্ন মূসক হারও থাকবে।

প্রতি মাসে এনবিআরে দাখিলসহ অন্যান্য আনুষঙ্গিক হিসাবপত্র স্বয়ংক্রিয়ভাবে প্রস্তুত ও প্রিন্ট নেওয়ার সুযোগও রয়েছে এতে। প্রতিটি বেচাকেনার তথ্য আলাদাভাবে সংরক্ষণের সুযোগ রয়েছে এ সফটওয়্যারে।

অর্থনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন