বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

শিপিং লাইন, বেসরকারি কনটেইনার ডিপো ও ফ্রেইট ফরোয়ার্ডার প্রতিনিধিদের সঙ্গে গতকাল সোমবার বৈঠকের পর এই সিদ্ধান্তের কথা জানান বন্দর চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল মো. শাহজাহান। বন্দরের অগ্রাধিকার ঘোষণার মধ্যে রয়েছে যেসব জাহাজ রপ্তানি পণ্যবাহী কনটেইনার নিয়ে শুধু কলম্বো যাবে, সেগুলোকে অগ্রাধিকার ভিত্তিতে জেটিতে ভেড়ানো হবে। আবার চট্টগ্রাম-কলম্বো রুটে নতুন করে জাহাজ নামাতে চাইলে তা দ্রুত অনুমোদন দেওয়া হবে।

বন্দরের অগ্রাধিকার ঘোষণার পর গতকাল বিকেলেই এভারবেস্ট শিপিং কোম্পানি চট্টগ্রাম-শ্রীলঙ্কা রুটে নতুন একটি জাহাজ নামানোর আবেদন করে। তাৎক্ষণিকভাবে এই জাহাজের অনুমোদনও দেওয়া হয়। আগামী সপ্তাহে জাহাজটি চট্টগ্রাম-শ্রীলঙ্কা নৌপথে কনটেইনার পরিবহন শুরুর কথা রয়েছে।

এদিকে চট্টগ্রামের ১৯টি ডিপোতে গতকাল রপ্তানি পণ্যের কনটেইনারের সংখ্যা বেড়ে ১৫ হাজার ৫৫৩টিতে উন্নীত হয়েছে। এটি যেকোনো সময়ের তুলনায় রেকর্ড। মূলত সিঙ্গাপুর কিংবা কলম্বো বন্দর থেকে বড় জাহাজের বুকিং না পাওয়ায় এই সংকট তৈরি হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে বন্দর নতুন এই সিদ্ধান্ত নিল।

কলম্বোগামী জাহাজকে অগ্রাধিকার দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হলেও কলম্বোয় কনটেইনার নেওয়ার পর বড় জাহাজে বুকিং পাওয়া নিয়ে অনিশ্চয়তা আছে। তাই গতকালের বৈঠকে শীর্ষস্থানীয় শিপিং কোম্পানি মায়ের্সক লাইনকে চট্টগ্রাম-কলম্বো পথে তিনটি জাহাজ চালুর আহ্বান জানানো হয়। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটি চট্টগ্রাম-সিঙ্গাপুর পথে ১২টি জাহাজ পরিচালনা করছে।

অর্থনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন