বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সার্বিকভাবে ২০২১ সালের জুলাই-ডিসেম্বর ছয় মাসে প্রবাসী আয় এসেছে ১ হাজার ২৩ কোটি ডলার। এই আয় ২০২০ সালের একই সময়ে ছিল ১ হাজার ২৯৪ কোটি ডলার। চলতি অর্থবছরে কমেছে প্রায় ২১ শতাংশ।

এদিকে প্রবাসী আয় বাড়াতে গতকাল শনিবার থেকে প্রণোদনা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এ নিয়ে আজ বাংলাদেশ ব্যাংক প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। ফলে প্রবাসীরা এখন থেকে দেশে অর্থ পাঠানোর বিপরীতে আড়াই শতাংশ হারে প্রণোদনা পাবেন। অর্থাৎ একজন প্রবাসী দেশে ১০০ টাকা পাঠালে আড়াই টাকা করে প্রণোদনা পাবেন। আগে প্রণোদনার হার ছিল ২ শতাংশ। প্রবাসী আয়ের ধারাবাহিক পতন ঠেকাতে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার।

করোনাভাইরাসের প্রভাব কাটিয়ে বৈশ্বিক অর্থনীতি যখন ঘুরে দাঁড়াচ্ছে, তখন প্রবাসীদের পাঠানো আয়ে বড় ধাক্কা লাগতে শুরু করেছে। ব্যাংকিং চ্যানেলে তথা বৈধ পথে প্রবাসী আয় পাঠানোর বিপরীতে প্রণোদনা বহাল থাকলেও গত নভেম্বরে যে প্রবাসী আয় আসে, তা ছিল ১৮ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন।

অবশ্য অবৈধ পথে প্রবাসী আয় পাঠালে দেশে বৈধ পথের চেয়ে বেশি অর্থ পাওয়া যায়। যেমন বর্তমানে ব্যাংকিং চ্যানেলে ডলারের মূল্য যেখানে ৮৫ টাকা ৮০ পয়সা, সেখানে খোলাবাজারে তা ৯০ টাকার বেশি। এ কারণে অনেক প্রবাসীই বৈধ পথের পরিবর্তে অবৈধ পথে অর্থ পাঠান বলে মনে করা হয়।

অর্থনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন