default-image

সেবা নেওয়া ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানগুলোর কাছ থেকে এবার পুরোনো মূল্য সংযোজন কর (মূসক) বা ভ্যাটের টাকা চাইল যৌথ মূলধন কোম্পানি ও ফার্মসমূহের নিবন্ধক কার্যালয় (আরজেএসসি)। গতকাল বুধবার এক বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বকেয়া ভ্যাট পরিশোধের আহ্বান জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, ২০১৪-১৫ থেকে ২০১৭–১৮ অর্থবছর পর্যন্ত যেসব প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন সেবা নিয়েছে, সেসব প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে সেবা মাশুল নেওয়া হলেও কোনো ভ্যাট নেওয়া হয়নি। অতি শিগগির ভ্যাট দেওয়ার জন্য আহ্বান জানিয়েছে যৌথ মূলধন কোম্পানি ও ফার্মসমূহের পরিদপ্তর। ওই সময়ে (২০১৪-১৫ থেকে ২০১৭-১৮ অর্থবছর) পুরোনো ভ্যাট আইন চালু ছিল। সেই আইন অনুযায়ী, এ দপ্তরের যেকোনো সেবার বিপরীতে ১৫ শতাংশ হারে ভ্যাট আরোপ হয়। যেসব প্রতিষ্ঠান বকেয়া ভ্যাট পরিশোধ করবে না, ওই সব প্রতিষ্ঠান ভবিষ্যতে যৌথ মূলধন কোম্পানি ও ফার্মসমূহের পরিদপ্তরের কোনো সেবা নিতে পারবে না বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।

এ বিষয়ে যৌথ মূলধন কোম্পানি ও ফার্মসমূহের পরিদপ্তরের নিবন্ধক মকবুল হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) অডিট আপত্তির কারণে এখন বকেয়া ভ্যাট চাওয়া হয়েছে। যাঁদের কাছে বকেয়া ভ্যাট পাওনা আছে, তাঁরা পরবর্তী সেবা নেওয়ার আগে যেকোনো সময়ে এই বকেয়া ভ্যাট দিতে পারবেন।

বিজ্ঞাপন
অর্থনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন