বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নিউজিল্যান্ড, চীনসহ, বেশ কিছু দেশ শূন্য কোভিড নীতি গ্রহণ করেছে। এতে সেসব দেশের বন্দরে দীর্ঘ জট লেগে গেছে। আমি বলব, এটা একধরনের পলিসি ওভার রিঅ্যাকশন বা নীতিগত অতি প্রতিক্রিয়া। বাস্তবতা না মেনে এমন আচরণ করছে তারা। আর দুই বছর আগের তুলনায় আমরা এখন অনেক অভিজ্ঞ ও সমৃদ্ধ। কোভিডের টিকা ও ওষুধ এসে গেছে। চিকিৎসা প্রটোকল দাঁড়িয়ে গেছে। ফলে এখন আর শূন্য কোভিড নীতি গ্রহণের মানে হয় না।

২০২১ সালের শেষ দিকে এসে বিশ্ব অর্থনীতির সবচেয়ে মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে মূল্যস্ফীতি। তবে এটা ঠিক চাহিদাজনিত নয়, যদিও চাহিদার ভূমিকা আছে। মূলত সরবরাহ সংকটের কারণে এটি ঘটছে। বাড়তি চাহিদা খুব বেশি দিন থাকবে না। তবে আগামী ছয় মাস বাস্তবতা এমনই থাকবে বলে ধারণা করি। শূন্য কোভিড নীতির কারণে এই সংকট হচ্ছে, যেটা আগেও বলেছি। তবে মূল্যস্ফীতি মোকাবিলায় কেন্দ্রীয় ব্যাংক ব্যবস্থা নিচ্ছে। প্রণোদনা প্যাকেজ থেকেও দেশগুলো বেরিয়ে আসছে।

জাহিদ হোসেন : বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশ আবাসিক মিশনের সাবেক মুখ্য অর্থনীতিবিদ

অর্থনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন