default-image

কারিগরি ও প্রযুক্তিজ্ঞান, প্রযুক্তি–সহায়তা, রয়্যালটি ও ফ্র্যাঞ্চাইজি মাশুল বিদেশে পাঠাতে এখন অনুমোদন লাগবে না। বাংলাদেশ ব্যাংক ও বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (বিডা) অনুমোদন ছাড়াই প্রকল্পের ৬ শতাংশ অর্থ এসব খাতে ব্যয়ের জন্য বিদেশে পাঠানো যাবে। বিডা এ বিষয়ে নীতিমালা দিয়েছে, যা প্রজ্ঞাপন আকারে জারি করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ফ্র্যাঞ্চাইজি ফি ও ঠিকাদারের অনুকূলে ফি পাঠানোর বিষয়ে আগের নির্দেশনা বহাল থাকবে। পাশাপাশি অগ্রিম ফি পরিশোধের ব্যবস্থা আগের মতোই থাকছে। অগ্রিম ফি পরিশোধের ক্ষেত্রে বৈদেশিক মুদ্রা লেনদেন ব্যবস্থায় অন্য নির্দেশনাও মেনে চলতে হবে। বিডার নীতিমালা অনুযায়ী মাশুল পাঠানোর ক্ষেত্রে খরচ প্রেরণকারীকে একটিমাত্র অনুমোদিত ডিলার ব্যাংক নির্ধারণ করতে হবে। অর্থ পাঠানোর ক্ষেত্রে প্রযোজ্য উৎসে কর, ভ্যাট ও অন্যান্য সরকারি পাওনা আদায় ও পরিশোধ করতে হবে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের কর্মকর্তারা বলছেন, এসব খরচ পাঠাতে গ্রাহকদের অনেক সময় ব্যয় হতো। নতুন নির্দেশনার ফলে নির্দিষ্ট ব্যাংক থেকে সহজেই খরচ পাঠানো যাবে। এতে প্রকল্প বাস্তবায়নের সময় কমে আসবে।

বিজ্ঞাপন
অর্থনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন