বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ ব্যাপারে গতকাল মঙ্গলবার জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) ভ্যাট বিভাগ ও আইসিএবি একটি সমঝোতা স্মারক সই করেছে। রাজধানীর সেগুনবাগিচায় এনবিআরের সম্মেলনকক্ষে ভ্যাট বিভাগের সদস্য মাসুদ সাদিক ও আইসিএবির সভাপতি মাহমুদুল হাসান খসরু নিজ নিজ সংস্থার পক্ষে সমঝোতা স্মারকে সই করেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম। এই সময় উভয় পক্ষের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে গত বছরের শেষ দিকে আয়কর বিভাগ ও আইসিএবি একই ধরনের সমঝোতা স্মারক সই করেছিল।

এনবিআর চেয়ারম্যান আবু হেনা মো. রহমাতুল মুনিম বলেন, প্রতিষ্ঠানের আয়-ব্যয়, বেচাকেনাসহ সামগ্রিক হিসাবে স্বচ্ছতা প্রতিষ্ঠিত হলে করের বোঝা কমবে। এ জন্য কোম্পানির হিসাব স্বচ্ছ হওয়া জরুরি। একই সঙ্গে চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্সি প্রতিষ্ঠানগুলোকে কোম্পানির নিরীক্ষা প্রতিবেদনের সত্যতা যাচাইয়ের কাজ পেশাদারত্বের সঙ্গে সম্পন্ন করতে হবে।

এনবিআর চেয়ারম্যান আরও বলেন, স্বচ্ছ হিসাব নিশ্চিত করার ক্ষেত্রে সব পক্ষের দায়িত্ব রয়েছে। বর্তমানে ভ্যাট রিটার্ন দাখিলসহ অন্য অনেক কাজই ডিজিটাল ব্যবস্থায় হচ্ছে। এনবিআর আশা করে, এ ক্ষেত্রে ব্যবসায়ীরা সহযোগিতা করবেন, স্বচ্ছ হিসাব রাখবেন।

আইসিএবির সভাপতি মাহমুদুল হাসান খসরু বলেন, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ভ্যাট কর্তৃপক্ষের কাছে যেসব আর্থিক হিসাব বিবরণী দেয়, তা অনেক ক্ষেত্রে ভুয়া হয়। এতে একদিকে সরকার রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হয়, অন্যদিকে চাটার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্সি পেশারও সুনাম ক্ষুণ্ন হয়। ডিভিএস চালুর ফলে ভুয়া হিসাব বিবরণী দাখিল বন্ধ হবে।

অর্থনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন