বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বেনাপোলভিত্তিক ক্লিয়ারিং অ্যান্ড ফরোয়ার্ডিং (সিঅ্যান্ডএফ) এজেন্টরা বলছেন, বেনাপোল-পেট্রাপোল উভয় স্থলবন্দরে এত বেশি পণ্যবোঝাই ট্রাক অপেক্ষা করছে যে দুই দেশের মধ্যে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম অনেকটা স্থবির হয়ে পড়ছে।
বেনাপোল কাস্টম হাউস ও স্থলবন্দর সূত্রে জানা গেছে, যেখানে ৫১ হাজার মেট্রিক টন পণ্য রাখার ক্ষমতা রয়েছে, কিন্তু আসছে দ্বিগুণের বেশি। আগে যেখানে প্রতিদিন রপ্তানিমুখী পণ্য নিয়ে ১০০ থেকে ১৫০টি ট্রাক বেনাপোল স্থলবন্দরে আসত, সেখানে এখন ৩০০ থেকে ৩৫০টি ট্রাক আসছে। বাড়তি এই চাপ সামলাতে হিমশিম খাচ্ছে দুই দেশের দুই স্থলবন্দর। এতে অবশ্য স্থলবন্দর দুটির সক্ষমতা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে।

বেনাপোল স্থলবন্দরের উপপরিচালক (ট্রাফিক) মামুন কবির তরফদার প্রথম আলোকে বলেন, হঠাৎ ১৫ দিন ধরে ভারতে পণ্য রপ্তানি বেড়ে গেছে। আগে দিনে ১০০ থেকে ১৫০ ট্রাক রপ্তানি পণ্য নিয়ে আসত। এখন সেখানে প্রতিদিন দ্বিগুণ বা আরও বেশি ট্রাক পণ্য নিয়ে আসছে। কিন্তু ভারত প্রতিদিন ২১৫ ট্রাকের বেশি নিতে পারছে না। ফলে পণ্যের জট বেঁধে যাচ্ছে।

আমদানি-রপ্তানিকারকেরা জানান, বেনাপোল স্থলবন্দরের ট্রাক টার্মিনাল ও আশপাশের এলাকায় পণ্যবোঝাই প্রায় ৫০০ ট্রাক, আর ভারতের পেট্রাপোলে ১ হাজার ৪০০ ট্রাক দাঁড়ানোর জায়গা রয়েছে। কিন্তু উভয় স্থলবন্দরে এখন আর পণ্যবোঝাই ট্রাক রাখার কোনো জায়গা নেই। তাই সড়কের ওপর রাখা হচ্ছে ট্রাক। এতে তীব্র যানজট দেখা দিয়েছে এবং দুই দেশগামী যাত্রীদের যাতায়াতে সমস্যা হচ্ছে।

অর্থনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন