রিলায়েন্স বলছে, এই সময়ে কোম্পানিটির মুনাফা বৃদ্ধি পেয়েছে ২৬ শতাংশ। অর্থের হিসেবে ৬৭ হাজার ৮৪৫ কোটি রুপি বা ৯ বিলিয়ন ডলার। এই মুনাফা ভারতের সবচেয়ে লাভজনক বেসরকারি সংস্থা হিসেবে প্রতিষ্ঠানটির শীর্ষস্থান ধরে রাখতে সহায়তা করেছে। এখন কোম্পানিটির পরিচালন মুনাফা ৩৪ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ১ দশমিক ২ লাখ কোটি রুপিতে উন্নীত হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে প্রতিষ্ঠানটির চেয়ারম্যান ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক মুকেশ আম্বানি বলেন, মহামারির চলমান চ্যালেঞ্জ ও চরম ভূ-রাজনৈতিক অনিশ্চয়তা সত্ত্বেও রিলায়েন্স ২০২১-২২ অর্থবছরে ব্যবসায়িক দিক থেকে শক্তিশালী অবস্থান তৈরি করতে সক্ষম হয়েছে।

আম্বানি আরও বলেন, ‘যদিও রিলায়েন্স বছরের পর বছর ধরে টেলিকম ও গ্রিন এনার্জিতে নতুন ব্যবসা চালু করেছে, তবে প্রতিষ্ঠানটির রাজস্ব আয়ের সিংহভাগ এসেছে ওটুসি ইউনিটের মাধ্যমে। ধীরে ধীরে অর্থনীতির বিকাশ, পরিবহন খাতের জ্বালানির ব্যবহার বৃদ্ধি আমাদের এই ওটুসি ব্যবসাকে দিন দিন শক্তিশালী করছে।’

রিলায়েন্স বলছে, ২০২২ অর্থবছরের জানুয়ারি থেকে মার্চ প্রান্তিকে প্রতিষ্ঠানটির মুনাফা ২০ শতাংশ বেড়ে ১৮ হাজার ২১ কোটি রুপি হয়েছে। এই সময়ে রাজস্বের পরিমাণ ৩৭ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ২ দশমিক ১ লাখ কোটি রুপি। এদিকে বাজার ভালো থাকায় চলতি অর্থবছরে চতুর্থ প্রান্তিকে এসে প্রতিষ্ঠানটির পরিচালন মুনাফা বেড়েছে ৩০ শতাংশ, অর্থাৎ ৩৩ হাজার ৪৯৩ কোটি রুপি।

কোম্পানিটি এক বিবৃতিতে জানায়, পরিবহন জ্বালানির ব্যয় বৃদ্ধিসহ নানা কারণে প্রতিষ্ঠানটির ওটুসি ব্যবসার পরিচালন মুনাফা ২৫ শতাংশ
বৃদ্ধি পেয়ে ১৪ হাজার ২৪১ কোটি রুপিতে উন্নীত হয়েছে। আর ডিজিটাল (জিও) ব্যবসায় পরিচালন মুনাফা ২৫ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ১১ হাজার ২০৯ কোটি রুপি। অবশ্য প্রতিষ্ঠানটির খুচরা ব্যবসার পরিচালন মুনাফা মাত্র ২ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৩ হাজার ৭১২ কোটি রুপি।

অর্থনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন