বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

একনেক সভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান সাংবাদিকদের বলেন, উড়ালসড়কের পাশাপাশি সেখানে সাবমারসিবল (ডুবন্ত) সড়কও নির্মাণ করা হবে। তিনি বলেন, প্রকল্পটি বাস্তবায়নে খরচ হবে ৩ হাজার ৪৯০ কোটি টাকা। পুরো টাকাই সরকারি তহবিল থেকে দেওয়া হবে। ২০২৫ সালের জুন মাসে উড়ালসড়কের কাজ শেষ করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে বাস্তবায়নকারী সংস্থা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি)।

ছোট ছোট সেতু নির্মাণ করতে এলজিইডির যেখানে গলদঘর্ম হওয়ার অবস্থা, সেখানে উড়ালসড়ক করার মতো সক্ষমতা সংস্থাটির আছে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী নিজেও বিষয়টি নিয়ে কথা বলেছেন। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এই উড়ালসড়ক করতে সড়ক ও জনপথ বিভাগ ও সেতু বিভাগের সঙ্গে অবশ্যই সমন্বয় করতে হবে।

পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, একনেকে ২৯ হাজার ৩৪৪ কোটি টাকা ব্যয়ে মোট ১০টি প্রকল্প অনুমোদন দেওয়া হয়েছে, যার মধ্যে মাতারবাড়ী কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রও আছে। মাতারবাড়ীতে আগে সমুদ্রবন্দর হওয়ার কথা থাকলেও, মঙ্গলবারের সভায় গভীর সমুদ্রবন্দর করার সিদ্ধান্ত হয়।

অর্থনীতি থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন