বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গত মাসে এনবিআরের সঙ্গে অনুষ্ঠিত বৈঠকেও এ আমদানি শুল্ক প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছিল সংবাদপত্র মালিকদের সংগঠন নিউজপেপার ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (নোয়াব)। একই সঙ্গে তারা করপোরেট কর সাড়ে ৩২ শতাংশ থেকে কমিয়ে ১২ থেকে ১৫ শতাংশ করারও প্রস্তাব করে।

গতকাল অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে অনুষ্ঠিত বৈঠকেও একই বিষয় তোলেন সম্পাদকেরা। অর্থমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ‘বাজেট প্রণয়নের সঙ্গে যুক্ত যে দল রয়েছে, সে দল পরামর্শগুলো নিয়ে কাজ করবে। যতটা আমাদের সাধ্যে কুলায় সেভাবেই কাজ করব।’

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, ডেইলি স্টার সম্পাদক মাহ্ফুজ আনাম বলেছেন, সংবাদপত্রশিল্প এমন বড় কোনো শিল্প নয় যে এ থেকে সরকারের খুব বেশি আয় হয়। ফলে দাবিগুলো সরকার বিবেচনা করতে পারে। এতে শিল্পটা টিকে যাবে।

সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের কাছে গণমাধ্যমগুলোর বিজ্ঞাপন বিল আটকে আছে ১০০ কোটি টাকার বেশি। এ টাকা পরিশোধ করারও দাবি জানানো হয় বৈঠকে।

এদিকে বৈঠক শেষে ব্রিফিংয়ে খাদ্যনিরাপত্তার বিষয়ে জানতে চাইলে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘কৃষি আমাদের প্রাণ। কৃষি খাতের যে যে জায়গায় হাত দেওয়া উচিত, সেগুলোতে সহযোগিতা করা হবে। সব ধরনের কৃষিজাত পণ্য উৎপাদনে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার নিশ্চিত করা হবে। শিক্ষিত যাঁরা কৃষিতে আসতে চান, তাঁদের উৎসাহিত করার জন্য কিছু কিছু প্রণোদনা রাখা হবে।’

শিল্প থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন