বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

এবারের মেলায় মোট ৩২৫টি স্টল রয়েছে। এর মধ্যে ১১৭টি তৈরি পোশাক ও ফ্যাশন প্রতিষ্ঠানগুলোর। কয়েকটি স্টল থেকে বলা হয়, কর্তৃপক্ষকে জানানোর পরেও তারা পানিনিষ্কাশনের কোনো ব্যবস্থা নেয়নি।

টঙ্গী থেকে আসা আহ-মাহরাহ বুটিকের উদ্যোক্তা ফারজানা খান বলেন, ‘আমি প্রাকৃতিক রং ব্যবহার করে শাড়ি ও কামিজ তৈরি করি। একবার পানি লেগে গেলে পণ্য পুরোই বাতিল হয়ে যাবে।’

এ বিষয়ে মেলার আয়োজক প্রতিষ্ঠান এসএমই ফাউন্ডেশনের মহাব্যবস্থাপক নাজিম হাসান সাত্তার প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমরা বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলনকেন্দ্র কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। তারা মেশিন বসিয়ে পানি অপসারণের ব্যবস্থা করছে। উদ্যোক্তাদের আপাতত অতিরিক্ত টেবিল দিয়ে পণ্য সংরক্ষণের ব্যবস্থা করতে হচ্ছে।’

বৃষ্টির কারণে মেলা বিঘ্নিত হওয়ায় সময় বাড়ানো হবে কি না, তা নিয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি বলে জানান এসএমই ফাউন্ডেশনের এই কর্মকর্তা। নাজিম হাসান সাত্তার আরও বলেন, ‘সাধারণত প্রথম দুই দিন মেলায় এমনিতেও ক্রেতাসমাগম কম থাকে। মেলার দিন বাড়ানো হবে কি না, তা এখনই আমরা বলতে পারছি না।’

মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন