বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

শাখা কার্যালয়ের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ঢাকা চেম্বারের সভাপতি রিজওয়ান রাহমান বলেন, ডিসিসিআই গুলশান সেন্টারের চেম্বারের সদস্যরা সদস্যপদ–সংক্রান্ত সেবা পাবেন। পাশাপাশি এটি ব্যবসা-বাণিজ্যবিষয়ক তথ্য প্রাপ্তির উৎসস্থল হিসেবে কাজ করবে। তিনি বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতির কাঙ্ক্ষিত উন্নয়ন নিশ্চিতকল্পে দেশের সব ব্যবসায়ী সম্প্রদায় একযোগে কাজ করছে। সামনের দিনগুলোতে এ বন্ধন আরও জোরালো হবে বলে আশা করেন করেন তিনি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, ২০৪১ সালের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে দেশের ব্যবসায়ী সমাজকে একযোগে দলমত-নির্বিশেষে কাজ করে যেতে হবে। তিনি বলেন, বাংলাদেশের অর্থনীতি দীর্ঘদিন ধরেই একটি কৃষিনির্ভর। আধুনিকায়নের মাধ্যমে উৎপাদিত কৃষিপণ্যের বহুমুখীকরণ নিশ্চিত করতে পারলেই আমাদের অর্থনীতির বিকাশ আরও বেগবান হবে। অর্থনীতিকে আরও গতিশীল করার পাশাপাশি উচ্চ প্রবৃদ্ধি নিশ্চিত করতে এসএমই খাতের ওপর আরও জোর দিতে হবে।

এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেন, ‘সরবরাহ ব্যবস্থায় আমরা বেশ পিছিয়ে রয়েছি। বিদেশি বিনিয়োগ আকর্ষণ করতে এ খাতের ওপর আরও মনোনিবেশ করা প্রয়োজন। ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে যানজট নিরসন ও সমুদ্রবন্দরের সেবার মান উন্নয়ন করা সম্ভব হলে ব্যবসায় ব্যয় হ্রাস পাব। সেটি হলেই আমাদের অর্থনীতির প্রবৃদ্ধি আরও গতিশীল হবে।’

অনুষ্ঠানে ঢাকা চেম্বারের জ্যেষ্ঠ সহসভাপতি এন কে এ মবিন, সহসভাপতি মনোয়ার হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, ডিসিসিআই ঢাকা কার্যালয়ের ঠিকানা হচ্ছে গুলশান অ্যাভিনিউয়ের বিটিআই ল্যান্ডমার্কের লেভেল ১১ তলায়। এত দিন সেটি ছিল গুলশান অ্যাভিনিউয়ের তাজ ক্যাসিলিনায়। গত ২৭ নভেম্বর থেকে নতুন শাখা কার্যালয়ের অনানুষ্ঠানিকভাবে সেবা প্রদান শুরু হয়। আজ সেটি আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয়।

শিল্প থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন