default-image

আজ সোমবার বেলা একটার দিকে পোস্তার চামড়ার আড়ত মেসার্স মাসুম ট্রেডার্সে গিয়ে দেখা যায়, বিকিকিনির ভর মৌসুমেও আড়তের কর্মী মো. জয়নাল শুয়ে আছেন। এই প্রতিবেদককে দেখে উঠে বসলেন। কথা প্রসঙ্গে তিনি জানান, এ বছর তাঁদের সাত হাজার চামড়া কেনার লক্ষ্য ছিল। গতকাল প্রায় চার হাজার কাঁচা চামড়া কিনে লবণ দিতে পেরেছেন। আজ সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত কোনো চামড়া আসেনি।

পোস্তা এলাকার আরেক আড়তদার আশিকুর রহমান জানান, এবারের ঈদে চামড়ার সরবরাহ কম। তাঁদের চার হাজার চামড়া কেনার লক্ষ্য ছিল, কিন্তু এখন পর্যন্ত ২ হাজার চামড়া কিনতে পেরেছেন। চামড়ায় লবণ দেওয়ার জন্য ৩০০ বস্তা লবণ কিনেছিলেন আশিকুর। অথচ ১২০ বস্তা এখনো অব্যবহৃত রয়ে গেছে। আশিকুর রহমান প্রথম আলোকে বলেন, ট্যানারির মালিকেরা বিভিন্ন স্থান থেকে সরাসরি চামড়া কিনছেন। এ জন্য পোস্তায় কাঁচা চামড়া আসছে কম।

default-image

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিটিএ) সাধারণ সম্পাদক শাখাওয়াত উল্লাহ বলেন, গতকাল ঈদের দিনেই ট্যানারির মালিকেরা প্রায় সাড়ে তিন লাখ কাঁচা চামড়া কিনেছেন। ঈদের দিনই গত বছরের তুলনায় ৫০ হাজার বেশি কাঁচা চামড়া কিনেছেন ট্যানারির মালিকেরা।

বাংলাদেশ হাইড অ্যান্ড স্কিন মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের (বিএইচএসএমএ) সাধারণ সম্পাদক মো. টিপু সুলতান বলেন, ‘সব কাঁচা চামড়া পোস্তায় না এনে নিজ নিজ এলাকায় লবণ দিতে আমরা সবাইকে অনুরোধ করেছিলাম। এ কারণে পোস্তায় চামড়া কম এসেছে।’

এদিকে ঈদের দ্বিতীয় দিনে কাঁচা চামড়ার দাম নিয়ে ভিন্ন ভিন্ন তথ্য পাওয়া গেছে ক্রেতা–বিক্রেতাদের কাছ থেকে। কেউ বলেছেন, দাম বেড়েছে। আবার কেউ বলেছেন, দাম গতকালের মতোই ।

ঢাকার আজিমপুর এলাকা থেকে ১২টি চামড়া নিয়ে পোস্তায় বিক্রির জন্য এসেছিলেন মৌসুমি ব্যবসায়ী মো. রফিক উল্লাহ। ২৫ থেকে ৩০ ফুট আকারের এসব চামড়া তিনি ৯০০ থেকে ১০০০ টাকায় বিক্রি করতে চান। কিন্তু দুটি আড়ত ঘুরে সর্বোচ্চ দাম পেয়েছেন ৬০০ টাকা। দাম কম মনে হওয়ায় অন্য আড়তের দিকে যাচ্ছিলেন রফিক। জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘গতকালের চেয়ে দাম একটু ভালো পাব আশা করেছিলাম। কিন্তু আশানুরূপ দাম পাচ্ছি না আড়তে এসে।’

উল্টো তথ্য দিলেন পোস্তার আড়তদারেরা। হাজি মতিউর রহমান এন্টারপ্রাইজের মালিক আশিকুর রহমান বলেন, গতকালের চেয়ে আজকে চামড়ার দাম একটু বেশি। কারণ, চামড়ার সরবরাহ কম। সেখানকার আরেক আড়ত দিদার এন্টারপ্রাইজের তত্ত্বাবধায়ক মো. আয়নাল আবেদিন বলেন, আজকেও চামড়ার দাম গতকালের মতোই।

এদিকে চামড়ার কেনাবেচা তদারকি করতে মাঠে কাজ করছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। প্রতিষ্ঠানটির উপপরিচালক বিকাশ চন্দ্র দাস বলেন, হেমায়েতপুর ও পোস্তা এলাকায় আমাদের দুটি দল কাজ করছে। দাম নিয়ে এখনো কোনো কাঁচা চামড়া বিক্রেতা অভিযোগ করেননি।

শিল্প থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন