অনুষ্ঠানে জানানো হয়, এক বছর আগে হুন্দাইয়ের সঙ্গে অংশীদারি করেছে ফেয়ার গ্রুপ। ২০২৩ সালের মধ্যে এ দেশে হুন্দাইয়ের সহযোগিতায় কমপ্লিট নকডাউন (সিকেডি) গাড়ি (পূর্ণাঙ্গ সংযোজন) তৈরি করবে ফেয়ার গ্রুপ। বাজারে নতুন গাড়ির চাহিদা বাড়ছে। সেই চাহিদা মেটাতে এ উদ্যোগ নিয়েছে তারা।

অনুষ্ঠানে ফেয়ার টেকনোলজি লিমিটেডের (এফটিএল) পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মুতাসিম দাইয়ান বলেন, ফেয়ার টেকনোলজির স্বপ্ন হলো, প্রতিটি পরিবারের জন্য একটি গাড়ি নিশ্চিত করা। আর প্রযুক্তির উৎকর্ষের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে ফেয়ার টেকনোলজি ২০২৩ সালের মধ্যে বৈদ্যুতিক গাড়ি (ইভি) উৎপাদন শুরু করবে। তিনি আরও বলেন, দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন হচ্ছে, মানুষের আয় বাড়ছে, তাই গাড়ির উপযোগিতাও বাড়ছে।

নতুন এই গাড়ি খুব উন্নত মানের বলে উল্লেখ করেন ফেয়ার গ্রুপের উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অবঃ) হামিদ আর চৌধুরী। বলেন, গ্রাহকেরা এই গাড়ি ব্যবহার করে উন্নত প্রযুক্তির স্বাদ পাবেন।

ঢাকা ও চট্টগ্রামে দুটি বিক্রয়কেন্দ্রের মাধ্যমে গ্রাহকদের সব ধরনের সেবা দেওয়া হবে বলে জানান ফেয়ার গ্রুপের বিক্রয় বিভাগের প্রধান আবু নাসের মাহমুদ। বলেন, এই গাড়ির যন্ত্রাংশ সাশ্রয়ী মূল্যে বাজারে পাওয়া যাবে। এ ছাড়া সান্তা ফের গ্রাহকেরা তিন বছরের ওয়ারেন্টি বা এক লাখ কিলোমিটার পর্যন্ত এই সুবিধা পাবেন। দেশে প্রতিবছর ৪০ হাজার গাড়ি আমদানি হয়। এর মধ্যে ৮৫ শতাংশই রিকন্ডিশন্ড গাড়ি; যেখানে জাপানি গাড়ির একচ্ছত্র আধিপত্য। নতুন গাড়ির বাজার ছয় হাজারের মতো, যা দিন দিন বাড়ছে।

অনুষ্ঠানে গাড়ির বাজারজাতকরণের আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করা হয়। অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন ফেয়ার গ্রুপের প্রধান আর্থিক কর্মকর্তা কাজী নাসির উদ্দিন, যোগাযোগ বিভাগের প্রধান হাসনাইন খুরশিদ, বিপণন বিভাগের প্রধান জে এম তাসলিম কবির প্রমুখ।

শিল্প থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন